আমাদের ছয়টি ঋতুর মধ্যে শীত আসে তার নিজস্ব রুপ নিয়ে। সে রুপের বর্ননা কিছুটা তুলে ধরেছি কবিতায়।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১১ জুন ১৯৯৪
গল্প/কবিতা: ১২টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - শীত (জানুয়ারী ২০২০)

শীতের আমেজ
শীত

সংখ্যা

আইরিন

comment ১০  favorite ০  import_contacts ৫৯
উত্তরের হাওয়ায় শরীরে কাপন লাগিয়ে,
যখন শীত আসে।
প্রকৃতিতে চলে ভিন্ন রুপে সাজার প্রস্তুতি।

বেলা বাড়ার সাথে সাথে সূর্য উঁকি দিলে,
রোদ পোহানোর ব্যস্ততা চলে।
পাটালি আর মুড়ি খাওয়ার ধুম পড়ে,
গ্রামের এপাশে ওপাশে।

এ সময় গৃহিণীদের চলে,
পিঠা বানানোর প্রস্তুতি।
বাহারি রকমের পিঠার ছাঁচে,
তৈরি করে পিঠা পুলি।

নানান রকম আয়োজন চলে,পুরো শীত জুরে।
প্রজাপতির আনাগোনা লেগে থাকে সরষে খেতে।
যতদুর চোখ যায় মনে হয়,
মুড়িয়ে রেখেছে গ্রামের চারপাশ
কেউ হলুদ রঙের চাদরে।
এসময় হেটে যেতে মন চায়,
গ্রামের মেঠো পথ ধরে, দুর থেকে দুরে।

আরাম আয়েশিদের কাছে, প্রিয় ঋতু শীত হলেও।
গরীবদের জন্য শীত দুঃখের কারন।
গরম পোশাকের অভাবে,
কারো চলে সংগ্রামী জিবন।

অল্প সময়ের জন্য হলেও,
ভিন্নরুপ নিয়ে শীত আসে।
স্নেহের পরশ বুলিয়ে দিয়ে,
মায়া রেখে যায় কোমল স্পর্শে।
পাতা ঝরার মলিনতা ভুলে,
প্রকৃতি সাজে আপন রুপে।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement