হিমেল হাওয়া বইছে এখন পাতা ঝরার পালা
শীতের খবর গাছ আগে পায় লোকের কতো জ্বালা।

টাপুর টুপুর শিশির কণা পড়ছে গাছের পাতায়
আসছে শীতে কঠিন কামড় বুকে কাঁপন ধরায়।

বরফ বোঝা কমবে বলে গাছের পাতা ঝরে
শীতের ছ্যাঁকা মানুষ জানে গায়ে চাদর চড়ে।

গরীব কতো বস্ত্র ছাড়া বৃদ্ধ- বৃদ্ধা শিশু
কে বাঁচাবে ওদের শীতে ঈশ্বর আল্লা যীশু?

পথের ধারে গুটি মেরে শুয়ে থাকে ওরা
রাত কেটে যায় ঘুম আসে না ওদের কপাল পোড়া।

ধুনি জ্বালায় তাপের আশায় প্রাণটি যদি বাঁচে
দারুণ কষ্টে জীবন কাটে ছেঁড়া কাঁথা যাঁচে।

কুয়াশা ঘোর ঘিরে রাখে গরীব লোকের জীবন
কষ্টে জীবন কাটে তাদের যেমন বিধির লিখন।

প্যাঁচার ডাকে ঘুম ভেঙে যায় লেপের টানাটানি
শীত পড়েছে বড্ড বেশী রাত যে অভিমানী।

অট্টালিকা পাশে দ্যাখো রঙিন বাতি জ্বলছে
গরীব দুখী প্রাণ বাঁচাতে শীতের চাদর খুঁজছে।

রবি মামার ঘুম ভাঙে না উঠছে দেরী করে
ভেজা রোদে শীত কাটে না মনে আগুন ধরে।