লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ৩ জানুয়ারী ২০১৮
গল্প/কবিতা: ৭টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - অন্ধত্ব (মার্চ ২০১৮)

কাজল জোছনা রাতে
অন্ধত্ব

সংখ্যা

মামুনুর রশীদ ভূঁইয়া

comment ৪৪  favorite ১  import_contacts ৯৩০
ঝিরিঝিরি রোদেলা হাওয়া চুমে যায় ঘুমন্ত কিশোরী চোখ
আঁখি ভোর দেখে-দোপাট্টা হাওয়ায় ভাসে-ভাসে আলোকিত ভোর-
স্বর্ণালী শিশির জলে-জ্বলে ঘাসফুল নোলক জ্বলে সহস্র অযুত
কি অপরূপ জিউসের স্বর্ণবৃষ্টি-ড্যানিকে পাবার আশায়-স্নিগ্ধ সকাল!
‘সুপ্রভাত’ ধরণী তোমায়।

উদাসী দুপুর আনমনা মন যায় ছুঁয়ে অপলক চোখ পদ্মজলে-
খেলে নার্সিসাসের জলছবি আরশি জলে-জ্বলে মুগ্ধ কিশোরী চোখ
জলজ প্রেমের জলে-জ্বলে প্রেম জ্বলজ্বলে-কি অপরূপ প্রেমেলা দুপুর!
‘শুভ মধ্যাহ্ন’ ধরণী তোমায়।

বৈকালী হাওয়া শিস্ দিয়ে যায় মর্মর বনে ঝরা পাতা দিনে
কী সুমধুর পত্রধবনি-ধ্বনি প্রতিধ্বনি প্রেমেরও ধ্বনি বিহবল আহবানে-
অ্যাডোনিস প্রেমে কাঁপে কিশোরী আফ্রোদিতি-কি অপরূপ যুগল বিকেল!
‘শুভ অপরাহ্ন’ ধরণী তোমায়।

সাঁঝের মায়া ধূপ জ্বেলে যায়-যায় জ্বেলে মঙ্গল প্রদীপ-নিভে যায় কিশোরীর দীপ-
স্বর্ণালী ভোর, উদাসী দুপুর, অ্যাডোনিসের স্বপ্ন বিকেল-ঝাপসা কেবলি-
‘রাত কানা’ কিশোরীর চোখে-কি নিদারুন সাঁঝবেলা! তবুও-
‘শুভ সন্ধ্যা’ ধরণী তোমায়।

কৃষ্ণ নিশীথে দূর-বহুদূরে কে তুমি বাজাও কৃষ্ণ বাঁশি
অর্ফিউস ফিরে যাও-যাও লয়ে সাথে-পঞ্চমীর চাঁদ, সপ্তর্ষী নক্ষত্র রাত
পূর্ণিমা জোছনাখানি আঁচলে বাঁধি-অমন রূপালী রাতে ‘রাতকানা’ কিশোরী-তবুও-
‘শুভরাত্রি’, রাত্রি তোমায়।

অতঃপর শুক্লপক্ষের রাতে-
বাদুড়েরা উড়ে যায় শ্মশানের ধারে-ধার লয়ে কিশোরীর চোখের জ্যোতি-
দিনের দু’চোখের আলো-আলো নিভে কাজল কালো-কৃষ্ণ রূপালী রাতে;
ঝিঁঝিঁ ডাকা রাতে কিশোরীর দু’চোখে কাজল-কাজল জোছনা আঁকে-কেবলি ভোরের ছবি-
এসো গো রোদেলা ভোর দু’চোখ চুমে-হাওয়ায় উড়ায়ে মোর বেআব্রু দোপাট্টাখানি।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement