কৈশোর এক বেয়াড়া বেপথু সময়। চিন্তা চেতনার দ্রুতগামীতা ভুলকে শুদ্ধ এবং শুদ্ধকে ভুল করে ফেলে। কৈশোর বাস্তব ও অবাস্তবতার এক সমাহার। রঙ ও রূপের বহুমাত্রিকতা এক অলীক ভুবন তৈরি করে। কল্পনার চাদর রূঢ় সত্যকে প্রবল সাহসিকতায় ঢেকে ফেলে। কৈশোরের বিচ্ছিন্ন ভাবনাকে কবিতায় তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েছে।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
গল্প/কবিতা: ৪৩টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - কৈশোর (সেপ্টেম্বর ২০১৯)

দড়িছেঁড়া মন
কৈশোর

সংখ্যা

জামাল উদ্দিন আহমদ

comment ৬  favorite ০  import_contacts ৫৩
এ্যাই চল যাবি নাকি, ওঠ না!
তাল গাছে বেল ধরে
জল থেকে মেঘ ঝরে
বেলা গিয়ে সারা হলো, ছোট না!

দ্যাখ দ্যাখ কত বড় আয়না!
বিল চিরে চিল ওড়ে
সূয্যিটা গলে পড়ে
কানা বক পুঁটি খুঁজে পায় না।

জলছবি লাল রঙ আকাশে
ইচ্ছেরা ডানা মেলে
স্বপ্নেরা ডালা খোলে
জুজুদের মুখ তাই ফ্যাকাশে।

বেড়াজাল ছিঁড়ে ফেল ঝটিতে
বুকে বল বলকায়
চোখজোড়া ঝলকায়
ব্যাঘ্রের তেজ আজ কটিতে।

আজ যেন সবকিছু আউলা
প্রজাপতি পাখি হয়
অমারাত আলোময়
দড়িছেঁড়া মন কেন বাউলা!

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement