কবিতায় সোজাসাপ্টাভাবে অঙ্কিত হয়েছে একজন পিতার আশা, আকাঙ্ক্ষা আর উচ্ছ্বাস তার সন্তানকে ঘিরে। পুত্রের সফলতায় একজন পিতা কীভাবে আন্দোলিত হয়, কীভাবে তার ভেতরে গর্ব আর তৃপ্তি পরিব্যাপ্ত হয় তা কবিতার বর্ণনায় ফোটানোর চেষ্টা করা হয়েছে। পিতৃত্বের স্বাদতো সন্তানদের অগ্রযাত্রায়।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
গল্প/কবিতা: ১৩টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftপিতৃত্ব (জুন ২০১৮)

পিতৃবোধন
পিতৃত্ব

সংখ্যা

জামাল উদ্দিন আহমদ

comment ০  favorite ০  import_contacts ১৩
প্রথম সিঁড়িতে যেই রেখেছিস পা, খোকা
শেষ বিন্দু উবে যায় আজন্মের স্বেদ –
জনকের দেহছোঁয় দখিনের হাওয়া।
যেইনা চড়েছিস দ্বিতীয় সোপান
ফিরে আসে লোহিত কণা পিতার শোণিতে –
গণ্ডদেশ সিক্ত করে স্বর্গচ্যুত ধারা।

যতই ভেঙ্গে যাস স্বপ্নের সিঁড়ি, আত্মজ
ভেঙ্গে পড়ে কুর্নিশে শৃঙ্গ সকল একে একে –
এভারেস্ট, অ্যাকোনকাগুয়া, ডেনালি, কিলিমাঞ্জারো ......
জনকের শির ঠেকে আকাশের ছাদে।

জ্বালিস যতই আলো যত হোস বিভাময়
জনিতা সলতে হয় স্বস্থির ধ্যানে।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

    advertisement