লেখকের তথ্য

Photo
গল্প/কবিতা: ২৫টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftনববর্ষ (এপ্রিল ২০১৮)

সালের প্রথম দিবস
নববর্ষ

সংখ্যা

জামাল উদ্দিন আহমদ

comment ১  favorite ০  import_contacts ১২২
মতলব মিয়া হালখাতায় ‘ইয়া রব’ লেখেনি তখনো
ফুলবানু সবে ভরেছে কলস ভেজাগায়ে;
তখনি দিগন্তের ওপারে উঁকি – কিছু হাসি কিছু লাজমুখে,
ফুলবানু দেখে আঁচলের আড়ে
দুষ্টুমিষ্ট নৃত্য দিঘির জলে।

তারপর গুটিগুটি পায়ের ছাপ - স্বর্ণালী প্রভাত
রেখে যায় সুপোরীর আধোলাল ছড়ায়;
আশীর্বাদে ছুঁয়ে দেয় আলুথালু তালবৃক্ষের শির,
ছোঁয় শায়িত সবুজের গা, সর্ষেফুলের চকচকে ঠোঁট
বাদ পড়েনা লজ্জাবতীর ফুলঝুরি কুসুমও।

দূরগাঁয়ে শোনা যায় ঢাক আর খরতাল-ধ্বনি
ঘোষপাড়ায় উথলায় মিষ্টান্ন ভাণ্ডার!
চৌধুরির গায়ে আদ্দির পাঞ্জাবী মাত্র পাটভাঙ্গা
চলেছেন গঞ্জের মেলায় বাঁকা লাঠি হাতে;
বাতাসার লোভে পিছু পিছু ছোকরার দল –
কাবাডির টক্কর হবে বিকেলের মাঠে।

ঈশানে লুকিয়ে রয় ডাক গুড়গুড় কালো ঘোমটায়
দেখে নেবে একহাত – কার জোর কত;
নিভে যাবে দপ করে দিবাকরের তাতানো উল্লাস।
তারপর শুধুই নৃত্য ঝরঝর মৃদঙ্গতালে
শোনা যাবে বেসুরো বাঁশির সুর মতলবের চালায়;
তখনো উদ্দাম উত্তাল রবে কাবাডির মাঠ।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement