বিজয় দিবসকে প্রকৃত বিজয় তখন বলা যাবে জাতির অর্ধেক নারীর অবদান যখন স্বীকৃতি পাবে।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১১ সেপ্টেম্বর ১৯৬৯
গল্প/কবিতা: ৩টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftবিজয় দিবস (ডিসেম্বর ২০১৮)

প্রকৃত বিজয়
বিজয় দিবস

সংখ্যা

hosne ara parvin

comment ০  favorite ০  import_contacts
৭১ এ নারীর অবদান- অনেক অনুক্ত,
গল্প, কবিতা, দলিল-পত্র সব যেন রিক্ত।
স্বাধীনতা যুদ্ধে তারা নানান ভূমিকায়,
নির্যাতিতের কথা শুধু ইতিহাসের পাতায়!
গোবরা ক্যাম্প, লেম্বুচোরায় ট্রেনিং নিয়েছে যেয়ে,
যুদ্ধ করার পায়নি সুযোগ বলে তারা মেয়ে।
ট্রেনিং এর ছবিতে দেখি অস্ত্র তাদের কাছে,
মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি এদের কয়জনের আছে!
ছদ্মবেশে জোগান দিয়েছে অস্ত্র, রসদ, তথ্য,
ধরা পড়ে সইতে হয়েছে নির্যাতন অকথ্য।
আহতদের সেবা করেছে খাইয়েছে তাদের রেঁধে

আত্মঘাতি হামলা করেছে বুকে মাইন বেঁধে।
বীরাঙ্গনা খেতাব দিয়ে দায় সেরেছি মোরা,
স্বীকৃতি দেয়া হয়নি তাদের যুদ্ধ করেছে যারা।
প্রাণের টানে দেশপ্রেমে করেছে কতকিছু-
মেয়ে হওয়ায় অবহেলা ছাড়েনি তাদের পিছু।
রওশন আরা, শিরীন বানু গেলো এরা কোথায়
তারামন বিবি তেইশ বছর পর সম্মাননা পায়!
বিজয় দিবসকে প্রকৃত বিজয় তখন বলা যাবে
জাতির অর্ধেক নারীর অবদান যখন স্বীকৃতি পাবে।

advertisement

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

    advertisement