আঁধার চিরঞ্জীব। প্রকৃতির অন্তর্ভুক্ত বিষয়বস্তু। প্রকৃতির এ আঁধারের ঊর্ধ্বে গিয়ে আমাদের জীবন জড়িয়ে যায় দ্বিতীয় কোন আঁধারে। আমরা পৃথিবীতে আসি শূন্য মুঠ নিয়ে। সে ছোট্ট মুষ্ঠেও রয়েছে অন্ধকার। প্রতিনিয়ত বেড়ে উঠতে উঠতে আমরা পুনরায় পরিচিত হই জীবনের নানা বাঁকে থাকা অন্ধকারের সাথে। সে আঁধার থাকে বিরহে, বিষণ্ণে। আমরা ক্রমশে নিজেদের অস্তিত্ব বিলীন হতে দেখি আঁধারের স্রোতে। আমাদের বুক ছেয়ে যায় নানাবিধ অন্ধকারের ছায়ায়। সহ্যের বাঁধ ক্ষয়ে পড়ে নিঃশব্দে। সন্ধ্যার সাথে আমরা নিজেদের মিল খুঁজে পাই। এক পা দুই পা করে হেঁটে যাই ঘোর অন্ধকারের দিকে। আক্ষরিক অর্থে আমরা নিজেরাই জীবনকে অস্তমিতের দিকে নিয়ে যাই। আমরা আমাদের যাবতীয় তিতিক্ষার নীল অন্ধকার রেখে ফিরে যাই আরেক অন্ধকারে। সম্বল হিসেবে সেই প্রথমের মতই শূন্য মুষ্ঠের মধ্য থাকে শূন্য আঁধারটুকু
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১৮ মে ১৯৯৫
গল্প/কবিতা: ১৩টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - আঁধার (সেপ্টেম্বর ২০১৮)

দ্বিতীয় আঁধার
আঁধার

সংখ্যা

মোট ভোট

নূরনবী সোহাগ

comment ১৩  favorite ০  import_contacts ৪৪৬
আঁধার মরে যায় না কভু;
তবুও বাঁচিয়ে রাখার কি আপ্রাণ চেষ্টা-আমি ও আমাদের
শূন্য মুষ্ঠের অন্ধকার কেটে যেতে যেতে
মাঠ ভরে যায় বিরহফুলে
তারাদের দেখে মনে হয়-কলঙ্কিত চিহ্ন
বিষণ্ণস্রোতে গলে পড়ে একান্ত ভিত
নড়বড়ে পদছাপ রেখে যাই; হেরে যাওয়া গলিপথে
সন্ধ্যার আগমনী বার্তায়
বুকে নিয়ে দ্বিতীয় আঁধার হাঁটতে থাকি রাত বরাবর
আঁধার মরে যায় না কভু
আমি ও আমরা মরে পড়ে থাকি
শূন্য মুষ্ঠে পুরনো অন্ধকার নিয়ে!

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement