দিলে ছেড়ে আমায় অসুখ বনে
অশনি পড়ল যে মনে,
গণৎকার এসে একি শুধাইল মোরে
জানু লুটাইয়া পড়িল ভূতলে !
তোমার কি সায় ছিল তাতে ?

অংশুমালি আমার মুখপানে চেয়ে
ব্যাগ্র কন্ঠে কি যেন বলছে !
আঁড়ি পেতে সেই রঙ্গিন অচলা
কথাগুলো শুধু গিলছেই গিলছে ...
তোমার কি সায় ছিল এতে ?

কুন্তল আমার টানিয়া টানিয়া
আউলা করিল কলমি,
দূর .. থেকে ভালুক নাচিয়া নাচিয়া
দিচ্ছে যে হাত তালি ,.
তোমার কি সায় ছিল তাতে?

ছেঁচিয়া উঠিয়া বলিলাম হায় !!!
জগতপতি তুমি আছ কোথায় ?
ঢোলক এসে আমার চোখের বারি ...
মিশিয়ে দিল সে এক
অজানা নদীর মোহনায় ..
তোমার কি সায় ছিল তাতে?

কাঁদা মাখা মোর অঙ্গ খানি,
কোন পথে যাবে না জানি !
নিয়ে গেল সেই অজানা পথিক
টেনে হিঁচড়ে মোর কণ্ঠক ..
তোমার কি সায় ছিল তাতে ?

বাক আমার নাহি যে আর
কি কহিব পার্থিব সমাচার,
বিরান প্রান্তরে অবশেষে অঙ্গ,
মিশে গেল এক কালে
তোমার কি সায় ছিল তাতে ?