কৈশোর বাঁধন হারা।পালতোলা, গুণটানা, দৌড়ঝাপ, সাঁতার কাটা, ইত্যাদি হাজারও দুষ্টুমিতে ভরপুর কৈশোর, কারও পোষ মানেনা;কৈশোরে প্রদর্শিত হয় উদ্দাম শক্তিমত্তা, প্রতিষ্ঠিত হয় ভালবাসার ভীত। জীবন সায়াহ্নে আজও মনে পড়ে কৈশোরের কত কী।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১ এপ্রিল ১৯৭১
গল্প/কবিতা: ৩৮টি

সমন্বিত স্কোর

২.৭৫

বিচারক স্কোরঃ ১.১৯ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৫৬ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - কৈশোর (সেপ্টেম্বর ২০১৯)

এই সুখ সেই আকাল
কৈশোর

সংখ্যা

মোট ভোট ১৩ প্রাপ্ত পয়েন্ট ২.৭৫

মোঃ মোখলেছুর রহমান

comment ১০  favorite ০  import_contacts ১৩৩
উত্তাল নদী,তবু ডুব সাঁতারে তুলো শালুক
ঝরো বাতাসের হিহি দাঁতে কড়া নাড়ে
কার্নিশের ধারে কথা বলো উঠতি যুবা;
যেতে হবে বহুদূর রানুদির শুনতে যে গান
কৈশোরের অলিগলি ঘুরে কী গান জমিয়েছিল রানুদি।
মনে প্রথম সূর্যের মতো ল্যাপটে থাকে আলো
শরীরে,চোখে মুখে দেয় সভ্যতা উঁকি
'হাসি'-তে সেঁটে থাকে নেম প্লেট "কৈশোর"।

স্লোগানে স্লোগানে বেড়ে ওঠে শরীর
কষ্টের বজ্রপাতে দু'কান ঢাকা বিবেক স্বপ্ন দেখে,
ঐ এল বুঝি বাবড়ি দোলা দল!
সামাল সামাল চারদিক কোলাহল।

হিংস্র হায়েনারা ভাবে 'কারা পেল বর'
এ নিশ্চয় তাদের ধ্বংসের খবর।

দৌড়-ঝাপের জলে হারায় ফতুয়া
বিছা,নথ কিংবা ঘুঙুর
উপোষে কাটা দুপুরে মায়ের ডাক
কানে বাজে সুমধুর।
উদ্যম কিলেকিলি ভালবাসার প্রথম শপথ
দুষ্টু চুম্বনের দুধর্ষ ভয় এখনও কথা কয়।
ডাংগুলি,গোল্লাছুট, হা-ডুডু-র ভাঙা পা
যদিও ভেঙেছিল সুখের কপাল,
এখনও অনুভবে আসে সে সবের আকাল।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement