একজন পিতার ভূমিকা তুলে ধরা হয়েছে এই কবিতায়। নিজের জীবন দান করে সে সন্তানকে বড় করে তোলে আর সন্তান তাকে দান করে বৃদ্ধাশ্রম।এটা খুবই কষ্টের। বৃদ্ধাশ্রম গুলো বন্ধ হোক,পিতা মাতার আশ্রয় হোক সন্তানের সাথে। কবিতাটি পিতৃত্ব নিয়েই লেখা তাই বিষয়ের সঙ্গে সামঞ্জস‌্যপূর্ণ।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১৪ এপ্রিল ২০১৮
গল্প/কবিতা: ২০টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftপিতৃত্ব (জুন ২০১৮)

পিতা
পিতৃত্ব

সংখ্যা

শরীফ মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান

comment ০  favorite ০  import_contacts ১৬
শত কষ্ট ব্যথায় বুকেতে দেয় আশ্রয়
শাসনে ভালোবাসায় জড়ায়ে রাখে মায়ায়
দিবস রজনী করে তোলে অবিরত মধুময়
পিতা তিনি শক্তি সাহস জীবনজুড়ে সহায়।

নিজের জীবন অকাতরে বিলিয়ে দেয়
সব সন্তানের সুখ রচনার নিমিত্তে হায়
ধাপে ধাপে নিজের বুকেতে কষ্ট নেয়
পিতা তিনি জীবনে চলার পথ করে দেয়।

সবটুকু অর্থ বিত্ত দিয়ে সন্তানকে বাঁচায়
সন্তানের সুখের তরে সব কষ্ট সয়ে নেয়
কোনো ব্যথা সন্তানেরে লাগতে না দেয়
পিতা তিনি মাথার ওপর ছায়া স্নেহময়।

এই পিতার আশ্রয় বৃদ্ধাশ্রম যদি হয়
তবে এই অবুঝ ওয়াহিদ ধিক্কার জানায়
সেই সন্তানের মতো নিকৃষ্ট কেউ নয়
যার পিতা বৃদ্ধাশ্রমে কাঁদে নিরালায়।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

    advertisement