কবিতায় ঠিক আগুন লেগেছে কবিতা হয়েছে স্বার্থলোভ।
কবিতা বিষাক্ত আগুনে পুড়ে হয়েছে ছাই অথবা কবিতার গায়ে আগুন লেগেছে।
কবিতায় ঠিক আগুন লেগেছে কচুরিপানার হাতড়ে বেড়ানো মুক্তো খোঁজা অন্ধ দর্শন।
কবিতা হয় উজবুকের হাতিয়ার। পতিতা সন্ত্রাসের আবৃত নগ্নদেহের বিষবাষ্প।
শাঁক দিয়ে মাছ ঢাকা জগাখিচুড়ী। মিথ্যাকে সত্যের মত সত্যের আদলে দেখতে দেখতে বানাতে যাওয়া।
মেদিনীর সব পাখিরা অন্ধকারে সাঁতার কাটে আর গাছের পাতাগুলো কখনো ধুলায় মোড়ানো।
অস্তিত্বের হত্যার বিচারে আজও মেখে গেছে পাপ অমলিন।
গন্ধপোকারা মিথ্যার পাপ সুবাস বলে ছড়ায় দিক-বিদিক। আর...
আর ঠিক দেখি মিথ্যার মাঝে লুকিয়ে থাকা গভীর গভীর সত্যগুলো।
বিকৃতরা বিকৃত থাকে আর থাকবে সেদিন সবার মত জগতজয়ী বিকৃত।
সংঘর্ষ বাঁধবে আবার বিকৃতে বিকৃতে। সংঘর্ষ বাঁধবে সেদিন...
বেঁচে আছে আর আবার বেঁচে থকবে সহজ মগজ আর সহজ ও সাবলীল।
বইয়ের পাতা পুড়তে পুড়তে আবার পাবো নেরুদাকে।
অথবা আবার দেখবো কবিকে।
জেলখানায় নাজিম হিকমত। কবিই কবিই......আর বিকৃতরা ঠিক মিথ্যুক...