কিছুদিন আগে আমার চাচ্চুর সাথে দেখা করতে চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালের সিভিল সার্জন এর কার্যালয়ে গিয়েছিলাম।অফিসে ঢুকতেই দেখলাম অনেকগুলো লোকের ভিড়।এক লোকের কাছে জানতে চাইলাম সেখানে কি হচ্ছিল। লোকটা বললেন সিভিল সার্জন এর সহকারী নিয়োগ পরীক্ষা চলছে।আমি জানতাম না আমার চাচ্চু পরীক্ষকের দায়িত্বে আছেন। ফোনে ওনাকে আমার আসার খবরটা বলতেই কিছুক্ষণ অপেক্ষা করতে বলেন।সে কারণে আমি বাইরে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করছিলাম।হঠাৎ করে ভিতর থেকে ৪-৫ জন পরীক্ষার্থী বের হয়ে এল।এদের কাছ থেকে কি পরীক্ষা নিল তা জানার জন্য অপেক্ষমাণ পরীক্ষার্থীরা ভিড় জমাল। এদের মধ্য থেকে একজন বলল বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ কখন অর্থাৎ কত তারিখ শুরু হয়েছিল জিজ্ঞেস করেছে। এটা শুনে অপেক্ষাদের থেকে একজন বলে উঠল ২১শে ফেব্রুয়ারি।/:) অন্য জন বলে ২৬শে মার্চ।X((সেটা শুনে তো আমি রীতিমত চমকে উঠলাম। এটা নিয়ে ওদের মধ্যে হৈচৈ অবস্থা শুরু হল।আমার ভিতরটায় কেমন যেন শুরু হল। আর থাকতে পারি নাই ওদের কথায় জবাব না দিয়ে।আমি গিয়ে যিনি ২১শে ফেব্রুয়ারি বলছে উনাকে জিজ্ঞেস করলাম আপনি পড়া-লেখা কতটুকু করেছেন? তিনি বললেন মেট্রিক পর্যন্ত। চিন্তা করলাম মেট্রিক পাস করা একজন লোক ভাষা আন্দোলন কিংবা মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে কিছুই জানেন না। ২১শে ফেব্রুয়ারি যে আন্তর্জাতিক মাতৃ ভাষা দিবস উনাকে বুঝানোর চেষ্টা করলাম। সে সব শুনে উনি তো আরো উত্তেজিত হয়ে গেল এবং ২৬শে মার্চ হলে যুদ্ধ ৯ মাস কেমনে হয় এটা-সেটা আরো কত কি!!!:-*
অন্য একজন বলে উঠে আমার কাছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম স্থান কথায় জানতে চেয়েছে। সেটা উত্তর হিসেবে কেউ বলে টুঙ্গিপাড়া আবার কেউ বলে ফরিদপুর। এসব সাধারণ প্রশ্ন নিয়ে ওদের মধ্যে রীতিমত উত্তেজনা শুরু হয়ে গেল। একজন স্বাধীন বাঙালি যে কিনা তার নিজ দেশের ইতিহাস সম্পর্কে অজ্ঞ। ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস কিংবা মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের মহা নায়ক যিনি দিয়েছেন মহান স্বাধীনতার ডাক এমন সব ইতিহাস যে অনেক স্বাধীন বাঙ্গালির কাছেই অজানা রয়ে গেছে। স্বাধীন বাঙ্গালির এমন সব কথাবার্তা এবং কর্মকাণ্ড দেখে একটা কথা না বলে থাকতে পারলাম না। হায়রে স্বাধীন বাঙ্গালি!!!