বাসে আমার পাশের সিটে বসা ছিল সুন্দরী এক মেয়ে,
মনে অনেক কৌতুহল জাগলো সেই মেয়েটিকে নিয়ে।
দুজনে পাশাপাশি সিটে বসা,
বাসের ধাক্কায় গায়ে গায়ে লাগে ঘষা।
এই ঘষায় তৈরি হয় অনেক শিহরন,
অজানা গন্তব্যে দোল খায় মোর মন।
অনেকক্ষন শুনসান নিরবতা,
মনে মেয়েটির জন্য জমে আছে অনেক কথা।
হঠাৎ করে মেয়েটি বলিলো,আপনার সাথে কি হওয়া যাবে পরিচয়?
আমি বলিলাম অবশ্যই,কেনো নয়?
মেয়েটি বলিলো ধন্যবাদ,আপনার কি নাম?
আমি সুধালাম আমার নাম নিজাম।
আমি বলিলাম আপনার নামটা কি বলা যাবে?
মৌ আমার নাম,মেয়েটি বলিল অনেক ভাবে।
এরপর মেয়েটির সাথে অনেক কথা হলো,
মেয়েটি বললো চুপ করে আছো কেনো,আরো কিছু বলো।
আমি বলিলাম হঠাৎ করে আপনি থেকে তুমিতে চলে আসলে যে তুমি?
মেয়েটি বলিলো তুমি ওতো তাই করিলে,বলো কি করিবো আমি?
তারপর আবার অনেক নিরবতা,
মেয়েটির চোখের দিকে তfকালে ধরা পরে তার লাজুকতা।
আমি বলিলাম দেখো মৌ বাহিরে চেয়ে,প্রকৃতি কত সুন্দর,
সবকিছু দেখতে ঠিক তোমার মত চমৎকার।
হেসে দিয়ে মেয়েটি বললো তুমি কি কবি?
সুধালাম আমি হ্যা,তুমিতো বুঝো সবই।
কিছুক্ষন পর মেয়েটি চাইলো আমার ফোন নাম্বার,
দিয়ে দিলাম তাকে,করিবো কি আর?
বাস যশোরে থেমে গেলো,
মেয়েটিও নেমে গেলো।
যাবার সময় বলে গেলো বাই বাই নিজাম,
বাই মৌ ভালো থেকো তুমি,অনেক কষ্ট করে আমি বলিলাম।