কবিতাটি সম্পূর্ণ মৌলিক এবং ইতিপূর্বে কোথাও প্রকাশিত হয়নি। তিন প্যারার কবিতাটিতে প্রতি প্যারায় ৬ (ছয়) লাইন করে মোট ১৮ (আঠার) লাইন রয়েছে। শিক্ষাগুরুর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে লেখা কবিতাটি অভ্রতে লেখা হয়েছে। যেহেতু জীবনের বিভিন্ন স্তরের শিক্ষাগুরুর প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে কবিতাটি লেখা হয়েছে তাই লেখাটি "শিক্ষক" বিষয়ের সাথে সামঞ্জস্য বলে মনে করি। ধন্যবাদ।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২ মার্চ ১৯৮৭
গল্প/কবিতা: ৪টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftশিক্ষক (অক্টোবর ২০১৯)

শ্রদ্ধা গুরুর তরে
শিক্ষক

সংখ্যা

নিলয় ভূঁইয়া

comment ০  favorite ০  import_contacts ৪৫
বসুধাগমনে পিতামাতা হাতে বিধাতা শেখালে চলা
মাতৃদেবীর স্নেহকোলাচলে প্রথম কথা বলা।
দুর্বোধ্য সে ভাষা কে বা বোঝে
বোঝে মাতৃদেবী,
পিতামাতা মোর প্রথম গুরু
তাদের চরণে সেবি।

খেলাচ্ছলে মোর প্রকৃতির কাছে উদার হতে শেখা
শত আঘাতেও সকলের তরে বৃক্ষের সেবা দেখা।
আকাশ শেখালো বিশাল হতে
নদী শেখালো সন্ধি,
প্রকৃতির এই পাঠশালা মোরে
ঋণে করে রাখে বন্দি।

বিদ্যালয়ে অক্ষরজ্ঞান, সুরে সুরে পাঠ শিখি
আদর্শলিপিতে যা কিছু পড়া পথে পথে মনে রাখি।
জীবনের ভিত শিক্ষাগুরু
কতনা যতনে গড়ে,
শত কোটি মোর শ্রদ্ধা জানাই
সকল গুরুর তরে।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

    advertisement