আমি বিজয়িনী বাংলার নারী।
হে, প্রেম, ত্যাগ, সহিষ্ণুতাই
আমার রমনীয় বৈশিষ্ট।
আমি সালংকারা হয়ে, ইন্দ্রপ্রস্থরাজ দুর্যোধনকে ঈর্ষনীয় করে
খন্ড প্রস্থের সুশাসন প্রমাণিত করি না।
একান্ন গৃহস্থালী, সন্তান লালন,
ঘর কন্যার ভালবাসা, আটপৌরে পার্বনে দৈনন্দিন,
আমাকে চিহ্নিত করে, পৃথিবীর আর কোন নারীর চেয়ে, শ্রেষ্ঠ নারিত্বে।।
আমার চোখের নীচে, শ্যামা মৃত্ত্বিকার সবুজ ছায়া।
গোধূলী আমার প্রিয় লগ্ন।
আমার কেশপাশ গভীর তিমীরের প্রচ্ছন্ন মায়া।।
অনঙ্গ বিলাস আমার সাজেনা
আমার মাঝে বসরাই গোলাপের লাল তীব্রতা নেই।
আমার হাসিতে ফুটে শিউলীর শুভ্রতা,
কষ্ট আমার অপরাজিতার নীল বেদনার মত।
তবে, নারী সৌন্দর্যেই বিলাসের জন্ম,
তাই আমারও বিলাস ফুল চয়নে, শাপলা পদ্ম জুঁই মল্লিকা
আর বিলাসী হয়ে উঠি তাম্বুল রাগে।
এটুকুই নারী জনমের কামনা।।