ও নদী জবাব দাও
জলের তৃষ্ণা কতোটা গভীর হলে
গাঙচীল নীড় খুঁজিয়া বেড়ায়
নদীমাতৃক বাংলায়?
ও তমালবনানী বলো
ছায়াহারা কেন শঙ্খচীলের
নিদাঘ দুপুরগুলো।

ও নদী বলোতো আমায় একবার
এখন কতোটা প্রলম্বিত, তোমার
ঢেউয়ের বিহার।

পাথর নুড়িতে কে করেছে
তোমার, গতিকে বিলম্বিত,
কাদের স্বার্থ হয়েছে তবে ফেনায়িত স্ফিত!
যুগে যুগে নারী যে জলে দিল কানসোনা বিসর্জন।
আবেগমথিত পুরুষ করেছে আত্মসমর্পন।

ওগো প্রিয় নদী বলোতো-
কে নিয়েছে কেড়ে হংসমিথুন প্রেম
কে কিনে নিলো বালুকার দামে
সেই সে তোমার শিশির মাখানো হেম।