আমি স্বাধীনতা বলছি অনন্তকাল ধরে চলছি পেলাম না কোথায় সুখ,
যেখানেই যাই সুখ নাহি পাই কষ্টের যন্ত্রানায় ফাটে মোর বুক।
ইংরেজ শাসন শেষে ২৪ বছর জিম্মি ছিলাম পাক বাহিনীর হাতে,
যুদ্ধ করে আসলাম আমি বীর বাংঙ্গালীর সাথে।
৭১ রে জন্ম আমার স্বাধীনতা হল মোর নাম,
প্রথম প্রথম বীর বাংঙ্গালী দিতো আমায় দাম।
যখন থেকে বীর বাংঙ্গালীর সোনার ছেলে শেষ,
নতুন নতুন নেতা আসে করতে শাসন দেশ।
স্বাধীনতা আমি শান্তি প্রিয় সব লোকেই তা জানে,
নেতারা সব আমার পায়ে শিকল দিয়ে টানে।
নতুন নেতা নতুন শিকল কায়দাও নতুন বেশ,
মুখে বলে পক্ষে তোমার ছাড় এখনই দেশ।
স্বাধানতা আমি পায়ের তলায় পৃষ্ট হচ্ছি আজ,
পাক ছাড়িয়া আসলাম বাংলায় পেতে কি এই লাজ?
স্বাধীনতা আমি আম জনতার কষ্টে পাওয়া ফল,
দেশদ্রোহী করছে বন্দি দিয়ে অসৎ বল।
স্বাধীনতা আমি আমায় পেতে যারা দিল রক্ত,
পাই না খুঁজে বাংলা জুরে সেই বাংঙ্গালীর ভক্ত।
বছর ঘুরে ২৬শে মার্চ আসে যখন দেশে,
নর-নারী সব স্তম্ভে আসে ফুল ব্যবসায়ীর বেশে।
স্তম্ভে উপর ফুল রেখ সব করে ঋণ শোধ,
যার তোরাটা বড় হবে করবে সে গর্ববোধ।
স্বাধীনতা আমি বছর জুরে একটা দিনই আসি,
ভন্ড ভক্তের অভিনয়ে আসে আমার হাসি।
স্বাধীনতা আমি স্তম্ভের মাঝে উঠি জ্বলে ফুটে,
আম জনতা শান্তি পায় আমার কোলে মুতে।
স্বাধীনতা আমি সবার মাঝেই বিরাজ করতে চাই,
আমার কাছে ধনী গরিব ভেদাভেদ নাই
ভরে উঠবে আমার হুদয় আনন্দেরই জলে।
দেখবো যখন সব জনতাই স্বাধীনভাবে চলে।