বৈশাখী মেঘ কালো হলেই
হৃদয়ের জানালা হুঁ হুঁ করে কেঁদে ওঠে
কেঁদে ওঠে বন্ধ দরজার প্রাণহীন কাঠ
সবুজ লতাপাতার বনে পড়ে যায় হাহাকার ধ্বনি।

ভয়ে থরথর কাঁপে পথের ধূলিকণা
হয়তো বা পাখির মত উড়ে যেতে হবে
দিগন্ত থেকে দিগন্তের দিকে.......

হঠাৎ! প্রগাঢ় ঘন কালো মেঘগুলো বর্ণিল হয়ে
হো হো করে হাসতে শুরু করে দিলো
সাথে চলছে বাতাসের ঢেউ খেলানো নৃত্য
রিমঝিম বৃষ্টি নূপুর পরে বজ্র ভাঙছে তুষার
ভাঙছে গাছপালা ঘরবাড়ি,উড়ছে পশুপাখি মানুষ।

কি হচ্ছে! আমি বিস্ময়ে চেয়ে আছি
ধূসর আকাশের কঠিন হৃদয়ের দিকে
মাটির বুকে শুয়ে শুয়ে দেখছি বৈশাখী মেঘের
পাষণ্ড হৃদয়ের দৃশ্যগুলো.......

আমি এখন কোনো ধূলিকণা নই
চাক্ষুষ একরাশ কাদামাটি........