ঘুমিয়ে আছে ওরা।
কিছু অনাকাঙ্ক্ষিত মুহূর্তের নিস্তব্ধতায়।
একদল দমকা হাওয়া, এই জাহাজবাড়ির পাশেই,
যারা রোজ তোর চুলকে এলো করে যাওয়ার গল্প শোনাতো।
আর হঠাৎ সব ভুলে লেকের ওপারে রাখা তোর শূন্য দৃষ্টি,
যেন এক অন্তহীন কবিতা।

এরপর ওরা ঘুমিয়ে পরে,
আর দুটি বসন্ত অপেক্ষায় কেটে যায়।
সেই চুল এলো করার গল্প আর অন্তহীন কবিতা শোনার এক বিরতিহীন অপেক্ষা।
যদিও রোজ এই পথে আমার স্বেচ্ছাচারী পদধ্বনি,
তবু ওদের ঘুম ভাঙ্গে না।
যেন অসময়ের ঘুমে আচ্ছন্ন, ঠিক তোর মতো।
কিছু অনাকাঙ্ক্ষিত মুহূর্তের নিস্তব্ধতায়।

আর এই জাহাজবাড়ির পাশে,
কত সময় কেটে গেল বিরতিহীন অপেক্ষায়।
ওদের অসময়ের ঘুম কি আজও ভাঙ্গবে না?
কখনোই কি ভাঙ্গবে না?
আবার ভাবি, এই প্রশ্নটা কতোটাই না অবান্তর !