ভুতের বাড়ি ভুতের হাড়ি বড় বড় ডিম,
ভুত তাড়াতে ভুতের নানী খাচ্ছে হিমশিম।
এ্যাংচি ভুতের ভ্যাংচি দেখে ট্যাঙ্কি মারে নাতি,
ক্যাড়ল ভুতের প্রেমে পড়ে নাতনীর জীবন পাতি।
নাতি নাতনীর খায়েশমতে নানীর জীবন শেষ,
এই মুহূর্তে খবর এলো পাহাড় পরীর দেশ।
যেখানেতে আছে নানীর নব জীবন শাড়ী,
যে শাড়ীতে জমা আছে হায়াত কাড়ি কাড়ি।
সে আশাতে নানী এখন বরফ ঘোড়ায় চড়ে,
অহংকারের ছড়ি ঘুরায় দিকবিদিকে ছুটে।
বলবো কি ভাই-
ভুতের বাড়ির চৌদিক আছে তবু বাড়ি বাঁকা,
ভূতের সাথে সখ্য হলেও বাড়ি নেইকো ফাঁকা।
ঐ দেখ ভাই ভুতের ভয়ে দিচ্ছে কারা দৌড়,
আঁধার রাতের ভয়ে তারা ছুটছে দেখ কেউ।
ভুতের সাহস দিনে রাতে শূন্যের কোঠায় তাই,
ব্যাখ্যা ছাড়া ভুতের ভয়ে রাত জেগোনা ভাই।