বৃষ্টির ভালবাসা উপেক্ষা করে আমি আজও হাঁটি
বৃষ্টিহীন কোন এক মরু উপত্যকায়।
এখন আমি বৃষ্টির সংসারে বাসিন্দা নই
অভিমানী বৃষ্টির বৃত্তান্ত শুনতে পাই না
ঠিক আগের মতো মাঝরাতে রিমঝিম শব্দে।
বৃষ্টির ফোঁটা ফোঁটা অশ্রুতে
কতবার ভিজেছিল
আমার অর্থহীন কবিতার খাতা।
ফুলের পাঁপড়িতে জমে থাকা বৃষ্টিকণা
কতবার ছিটকে পড়েছিল
আমার সফেদ পাঞ্জাবীতে।
বৃষ্টিকে ভেবে কতদিন ছাতা হাতে বেরিয়ে
বাড়ী ফিরে ছিলাম শূন্য হাতে।
এসো বৃষ্টি, আত্মশ্লাঘা ভুলে
এসো চেঁচিয়ে হৃদপিণ্ডের স্পন্দনে-
ঘূর্ণিঝড়ের দমকা গর্জনে।
ভিজিয়ে দাও পাপের মৃত্তিকা
মুচে দাও বৃথা গল্পের দগ্ধদাগ।
খামখেয়ালি চাদরের আবরণে শীতল তন্দ্রা
অটুটআদরে খামছে ধরে আবার ভিজিয়ে দাও।