অনেক কথা বলার ছিল
কেউ এলো না,তাই হয়নিকো বলা ।
মায়ের কোলে উঠে তাই হয়নিকো পথচলা ।
দু'চোখের স্বপ্নগুলো তাই শুকিয়ে গেছে,
গোধূলির ঝরে পড়া নির্জন পাতার শব্দে।


সত্যান্বেষীর ঝিঁঝিঁ পোকার কাছে কান পেতে
গল্প শুনতে শুনতে নিঃশব্দে ঘুমিয়ে যাবার সোনালী কথাগুলো
স্মৃতির পাতা থেকে আজও মুছে যাই নি ।
কে জানে সেই ডাস্টবিনের পাশের ৫ বছরের শিশুটি আজও হয়তো সমাগতদের কাছে শুধু 'মা'-কেই চেয়ে ছিলো।
জন্মদাত্রীর খোঁজে কেঁদে কেদে সবাই যার যার গন্তব্যে
শুধু ব্যার্থতা নিয়েই ফিরে গেছে।


গল্প শোনার নির্ঘুম রাত আজও আসে,
তবে,মম বাঁশরীর সুরের ছন্দ আজ নিরানন্দে কাঁদে,
এখনও প্রতি রাত শেষে কেউ ছোট আদরের মানিককে
ঘুম থেকে ডেকে দেয়।
তবু যে হারানো প্রাণের খোঁজে,
কোকিলের কুহুকুহু আর্তনাদ এখনও মনের আঙ্গিনায় বাজে।


কেউ হারানোদের এনে দিতে পারে নি।
কারণ,সবাই এই মুগ্ধ ধরার অবুঝ শিশু।