এই নগরীতে সবুজ স্বপ্নের বীজ বুনেছিল যে “কিন্নরী”
সে কি জানতো চারিদিকে এত কামুক চোখ? সে কি জানতো
লাম্পট্যের তৃষ্ণা মেটাতে অজস্রবার গুঁটিয়ে যাবে সে শামুকের মত? নাকি সে জানতো
বিচ্ছিরি বিস্বাদে গিলে ফেলতে হবে তাকে পেয়ালাভরা চিরতার নির্যাস!

উত্তপ্ত দুপুরের রোদে গলে গলে পড়ে এখন নৈতিকতার নোনা ঘাম
নিভৃত সঞ্চয়ে ডালপালা মেলে আকাশে মাথা তোলে
অযুত নিযুত, লক্ষ কোটি প্রহসন আর পরিহাস!
শেলতীব্রতায় কামনার উদ্বেল শিখাগুলো গাঢ় থেকে আরও গাঢ় হয়
শ্মশানে চিতার গন্ধ- ডোবায় ভেসে উঠে গলিত লাশ
লাশকাটা ঘরেও নাকি ধাঁরালো ফলায় যৌনতার স্বাদ মেটায়!
ঈশ্বরের আরাধনা সত্যিই আজ বড় বেমানান এই পাপের নগরে!

রক্তের নেশায় বুঁদ হয়ে থাকা হায়েনার আত্মতুষ্টিতে
ময়ূরাক্ষীর বুকে জেগে আজ একদলা ঘৃণা মিশ্রিত ক্ষোভিত চর!
ভ্রান্তিবিলাসে আচ্ছন্ন সবুজ স্বপ্নের ঘুম ভেঙ্গে যায় কিন্নরী'র
কেটে ফেলে নিজের শরীর থেকে অমূল্য মাতৃত্বের চাবিটুকু!