তুমি দেখতেই পাওনা আমার আকাশটা
যেখানটায় ঘিরে থাকে কেবল মন খারাপের মেঘ
অভিমানী গোপন কান্না'র বৃষ্টি; এক খরস্রোতা নদী বয়ে যায়
দূর থেকে দূর......

কোন এক মেলায় বিক্রি হয়ে গিয়েছিলাম
যেখানে মাথার চুল থেকে শুরু করে
পায়ের নখের প্রদর্শনী চলে; নিলামে চড়ে আগুনঝরা রূপ!
সেই থেকে আমি এখন নতশিরে শুধু হুকুমের দাস
একদিন প্রাণ খুলে নিঃশ্বাস নেবার স্বপ্নে বিভোর ছিলাম
অথচ কি অবলীলায় সেই স্বপ্ন বিলীন আজ!

“স্বাধীনতা” সেটা আবার কি? এর স্বাদ কেমন?
জানিনে আমি; দেখিওনি
তবে সোনার খাঁচা দেখেছি; জেনেছি কি যত্ন করে তুমি
আমার সবুজ স্বপ্নের পালকগুলো কেটে ফেলো!
চাপা আর্তনাদ আর দীর্ঘ নিঃশ্বাস
কে শুনেছে কবে কোনকালে!

দ্যাখো আজ তবে, সোনার খাঁচা থেকে
কেমন চুইয়ে চুইয়ে পড়ছে পৃথিবীর বুকে রক্তিম আলতা
রাঙ্গিয়েছি আমার পুরো শরীর
আরও রাঙিয়েছি শেকল দেয়া নগ্ন দুটি পা!