সতেরোশো ক্রোশ পথ অতিক্রম করে
এক ফালি সুখের ছোয়া কুড়িঁয়ে পেয়েছি।
কত লড়াই কত ঝড় তুফানে ও আমি ভেঙে পড়িনি
কত চাকচিক্যময় নতুন বিষয় ও আমাকে পাল্টাতে পারেনি,
সাপের মরনাত্মক ছোবলে ও হইনি বিষাক্রান্ত
আমি আমার অবস্থানে দিব্যি অনড় ছিলাম।
সমুদ্রের অথৈ নোনাজলে হাবুডুবু দিতে গিয়ে
হাতড়িয়ে পেলাম একটুকরো খড়কুটো ,
যা আমার সুখ, যা আমার শান্তি।
অস্থিরতার সীমাহীন এই পৃথিবীতে
ওই টুকুই আমার একমাত্র সুখের জায়গা,
ঢেউয়ের ভেলায় ভাসতে ভাসতে জীবন বহমান
সময়ের নতুন পরিবর্তনে ভিন্ন আহবান
পাল্টে যায় চেনা মানুষ , চেনা গন্ধ, চেনা অবন্থান
শুধু এই আমি একই ভাবে স্থীর বিদ্যমান।
নতুনত্বের রূপালি মেলাতে হারিয়ে যেতে দেইনি
কারো নজর না লাগে,
দীর্ঘ নখের আচরে রক্তাক্ত জখমে নীলাভ করে
আবদ্ধ ঘরে বুক দিয়ে আগলে রেখেছিলাম।
অথচ এত সহজেই না আক্রোশিত কন্ঠে উচ্চারিত হলো " স্বার্থপর"
মুক্ত পাখির মত উড়িয়ে দিলাম পৃথিবীর আকাশে
যা আমার ছিল, তা আমারই আছে।
হৃদয়ের অতল গহীনে চুপটি করেএকটি জায়গা
শূন্য করে রাখা আছে ।
না, নতুন কোনো অতিথি পাখির জন্যে নয়,,
আমার সেই হারিয়ে যাওয়া
একটুকরো শান্তির খড়কুটোর জন্য,
যাকে সুখপঙ্খি ভেবে আমি আজো বেচেঁ আছি।