তোমার মাঝে ছোট্ট আমি খেতাম হাবুডুবু,
লক্ষী তুমি মা জননী রাগ করনি কভূ।
নাড়ী ছেড়া ধন করে সযতন জন্ম দিয়েছ আমায়
বুঝতে শিখেছি, বাঁচতে জেনেছি তোমারই স্নেহের ছায়ায়
অবুঝ ছিলাম শৈশবে তাই
নষ্ট করেছি পেয়েছি যাহাই!
হওনি রুষ্ট তবুও তুমি এতই মমতাময়ী
তোমার স্নেহে এই দেখ মা হয়েছি ভূবনজয়ী
কৈশোরে এক দমকা হাওয়ায় কেটে গেল যেন সুর
আমায় ফেলে কেমনে মাগো চলে গেলে এত দূর?
কতনা কেঁদেছি চিৎকার করে দেয়নি কেউতো সাড়া,
অসহায় আমি দিশেহারা বুঝি হয়েছি পাগলপারা!
তোমার কবরে মাটি দিতে গিয়ে কাপন উঠেছে বুকে
আমায় ছেড়ে ঐ মাটিতে রয়েছ কেমন সুখে?
হাজার লোকের ভীড়েও মাগো তোমায় খুঁজে ফিরি
প্রার্থনা করি তুমি যেন পাও স্বর্গলোকের সিড়ি।