লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১ জানুয়ারী ১৯৮১
গল্প/কবিতা: ১১টি

সমন্বিত স্কোর

৪.৩৩

বিচারক স্কোরঃ ২.০৩ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ২.৩ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftদিগন্ত (মার্চ ২০১৫)

চলো দু'জনায়
দিগন্ত

সংখ্যা

মোট ভোট ২৩ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.৩৩

মনতোষ চন্দ্র দাশ

comment ১৬  favorite ১  import_contacts ১,৪৯৩
চলো দু'জনায় হাত রেখে হাতে
ছুটে যাই অাদিগন্ত সবুজ সোনালী ধানে ঢেউ খেলানো তেপান্তেরর মাঠে,
চৈতালি চৈত্রের হাওয়ায় নীলাভ অাকাশে উড়াই রঙ-বেরঙের বর্ণিল ঘুড়ি;
পথের ধুলায় লুটোপুটি খাওয়া শৈশবের মতো উল্লাসে মেতে
ঝিলের জলে শাপলা-শালুক তুলে বনবাঁদড়ে ঘুরে বেড়ায়।

চলো দু'জনায় হাত রেখে হাতে
কাল স্রোতের খেয়ায় দিগন্তে ভেসে বেড়ায়,
যেখানে উর্দ্ধমুখে রৌদ্র পোহায় স্থবির পর্বতমালা;
অপরাহ্নের রাঙা রোদে রঙধনু হয়ে মিলিয়ে যায় নীলিগিরির বুকে,
মেঘবালিকার মতো ছুটে যায় অাপন অালয়ে।

চলো দু'জনায় হাত রেখে হাতে
অচিনপুরের দেশে হুইসেল বাঁজিয়ে ধেয়ে চলা ট্রেনে,
গন্তব্যহীন অনন্ত পথের যাত্রী হয়ে ঝক্-ঝকা-ঝক্ শব্দে
গাছপালা-নদীনালা-ঘরবাড়ি ছাড়িয়ে
যেখানে শালিক ঝাঁকের কোলাহল থেমে অাসে
রাতের নিস্তব্দতায় নির্জন কোনো ষ্টেশনে।

চলো দু'জনায় হাত রেখে হাতে
দূর সীমান্তে কাঁটা তারের দেয়াল ডিঙ্গিয়ে
মুক্ত বিহঙ্গের মতো বসন্ত বাতাসে
উড়ে বেড়ায় অরন্য বিহারীর বুকে;
মহুয়া ফুলের মাতাল ঘ্রাণে অাচ্ছন্ন হয়ে
রূপকথার গল্প শুনে ঘুমিয়ে যায় ছায়াবৃেক্ষর কোলে।

চলো দু'জনায় হাত রেখে হাতে
যেখানে সাগরের বিশাল জলরাশি
অাছড়ে পড়ে অালতা রাঙ্গা নগ্ন বালুচরে,
গোধূলীর কপালে লালটিপ পরিয়ে
জলের বুক চিরে ভাস্কর দেয় ডুব।

চলো দু'জনায় হাত রেখে হাতে
বহুদূরে রাতের অাকাশে ঝলমলে তারার বুকে,
যেখানে চাঁদের অালোয় জোনাকির অানাগোনা
ঝিঁ-ঝিঁ পোঁকার বিরহ বৈরাগী সঙ্গীতে
বিরামহীন সুর ছাঁপিয়ে নুপুর পায়ে
পরিব্রাজক সন্ন্যাসীর মতো
জন্ম-জন্মান্তরের সাধনমার্গে হেটে চলি নিরবধিকাল।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement