লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ৪ মার্চ ১৯৮৪
গল্প/কবিতা: ১৮টি

সমন্বিত স্কোর

৪.২৯

বিচারক স্কোরঃ ২.২২ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ২.০৭ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftঈর্ষা (জানুয়ারী ২০১৩)

তৃষিত তিমির
ঈর্ষা

সংখ্যা

মোট ভোট ৭৬ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.২৯

নাজনীন পলি

comment ৩২  favorite ১  import_contacts ১,৭৫২
দ্রুতগামী পৃথিবীতে ছুটছে সবাই শুধু আমার পায়েই যত ক্লান্তি । আমার জন্মের পর বাবা আমার মুখ দেখে নাম রাখলেন পরী । ত্রিশ পেরোতে না পেরোতেই সেই আমি মৃত্যুকে করি আহবান শুধু একটি প্রশ্নের উত্তর খুঁজে না পেয়ে । বুকের ভিতর জমে থাকা স্বপ্ন স্বাদ যখন এসে দেয় পিছুটান ঠিক তখনই মনে হয় কিসের জন্য কার জন্য প্রতীক্ষাতে আছি আমি ? সেই স্বপ্নতো কবেই শেষ হয়ে গিয়েছে । যেদিন আমাদের রসুই ঘরটা দাউ দাউ আগুনে হল আলোকিত ,বাতাসে ছড়ালো পোড়া গন্ধ; সেদিন থেকেই আমার জীবনটা নিরানন্দ অন্ধকার । তারপরও প্রতি সকালে যখন সূর্য এসে জানালায় উঁকি দেয় বড় স্বাদ জাগে সব পাওয়ার, সেই সাথে ঈর্ষা জাগে তাদের তরে যারা সব পেয়েছে; যা কিনা আমারই পাওয়ার কথা ছিল ।
বছর ঘুরে শীত আসে কুয়াশার চাদরে নিজেকে মুড়িয়ে ঠিক আমারই মতন । আমিও এখন নিজেকে মুড়িয়ে রাখি ,ঢেকে রাখি মুখ নেকাপের আড়ালে । কিন্তু মানুষ হিসেবে আমার ও কিছু প্রাপ্য ছিল , নারী হিসেবে ছিল কিছু স্বপ্ন পূরণের অধিকার । কেউ বুঝেনা শীতের রাতে শরীরে জেগে উঠা যে কামনার সাপ হিসহিস ছোবল মারে তার থেকে কিভাবে আমি নিজেকে বাঁচায় ।
মনে পড়ে, হাসি আনন্দে কাটানো সেই আলোকিত দিনগুলো । চড়ই পাখির মত ফুড়ুৎ ফারাৎ উড়ে বেড়াতাম । কতদিন গত হল সেদিন ,মনে করতে পারিনা । আমি এখন আর দিন তারিখের হিসাব রাখিনা । কি হবে জেনে আজকের দিনটা রবি না মঙ্গল, তারিখটা এক নাকি তিরিশ ? শনিবার কোন স্যার ক্লাস নিবেন জীবন না পিনটু ? দীপান্বিতা ম্যাডাম কি ছুটি শেষে ফিরে এসেছিলেন , তিনি মেয়ে না ছেলে সন্তানের জননী হলেন ? কিছুতেই আর কিছু যায় আসে না ।

এখনো প্রতি রাতে স্বপ্নে দেখি অরণ্যের গাড় আবেগময় চোখ । অরণ্য আমার অরণ্য, যে দশ কিলোমিটার বাইসাইকেল চালিয়ে আসতো শুধু মাত্র আমার চোখে চোখ রাখার পিপাসায় । স্বপ্ন দুঃস্বপ্নে মোড় নেই, নেকাপ খুলে যাওয়ায় অরণ্যের আবেগময় চক্ষু হয় বিস্ফোরিত ; মুখে ভেসে ওঠে ভয়ার্ত চিৎকার ।
অরণ্য সুখের সংসার পেতেছে শাপলা কে নিয়ে । ওদের একমাত্র সন্তান অহনাকে নিয়ে কত যে আহ্লাদ শুধু আমার চোখে বিষ । এই বিষের জ্বালা এতটা তীব্র যতটা না তীব্র ছিল রসই ঘরের আগুনে পোড়া । মাঝে মাঝে মনে হয় সমস্ত পৃথিবীতে আগুন লাগিয়ে দেই ,কখনো বা মনে হয় নিজের শরীরে । যদি একবার শাপলা আর অরণ্যকে আমার তৃষিত তিমিরের স্বাদ দিতে পারতাম । পরক্ষণেই নিজেকে আর মানুষ মনে হয় না আমার , মনে হয় আমি একটা নর্দমার কীট । তা না হলে নিজের ছোট বোনের সুখের সংসার দেখে এতটা জ্বলুনি কেন আমার ? হ্যাঁ, অরণ্য এখন আমার ছোট বোনের স্বামী ।

advertisement

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
  • মনোয়ার মোকাররম
    মনোয়ার মোকাররম এই গল্পের যে দিকটা আমার ভালো লেগেছে তা হলো অতি
    সংক্ষেপে একটা ঘটনাকে একটা ফ্রেমে বাধা যে কাজটা আসলেই
    খুব কঠিন মনে হয় আমার কাছে..সত্যি বলতে কি আমি অনেকবার চেস্টা
    করেছি....কিন্তু প্রতিবারই ব্যর্থ হয়েছি...এই কষ্টসাধ্য কাজটির জন্য
    অভিনন্দন !
    প্রত্যুত্তর . ১২ জানুয়ারী, ২০১৩
    • নাজনীন পলি আপনি গুছিয়ে খুব সুন্দর করে প্রশংসা করেছেন , ভালো লাগছে । গল্প পড়ার জন্য অনেক ধন্যবাদ পরের সংখ্যাতে ও পাঠক হিসেবে আপনাকে পাওয়ার আশা করছি ।
      প্রত্যুত্তর . ১২ জানুয়ারী, ২০১৩
  • তানি হক
    তানি হক ছোট গল্পে ..দারুন কিছু ম্যাজিক ছড়িয়েছেন ..যার ফলে মনে হলো যেন অনুগল্প নয় ..বড় গল্পই পড়লাম....আমাদের সবাইকে আল্লাহ তায়ালা ..ধর্য ধারণের ও সঠিক পথে চলার ..ক্ষমতা ও সাহস দিন ...ধন্যবাদ প্রিয় আপুনিকে
    প্রত্যুত্তর . ১২ জানুয়ারী, ২০১৩
    • নাজনীন পলি তানি , আপনি গল্প পড়েছেন এটা জেনেই আমার ভীষণ ভালো লাগছে , আর মন্তব্য পেয়ে তো আমি ভীষণভাবে উদ্বুদ্ধ হলাম । অনেক শুভেচ্ছা ।
      প্রত্যুত্তর . ১২ জানুয়ারী, ২০১৩
  • ভাবনা
    ভাবনা পলি আপু খুব ভাল লেগেছে । শুভ কামনা ।
    প্রত্যুত্তর . ১৩ জানুয়ারী, ২০১৩
  • হাবিব রহমান
    হাবিব রহমান ঈর্ষা হচ্ছে......... এত ছোট গল্পের ভিতরে, এত্ত বড় একটা ঘটনা লূকানো.....পাঠক ইচ্ছে করলে তার মত করে সাজিয়ে নিতে পারবে।
    প্রত্যুত্তর . ১৪ জানুয়ারী, ২০১৩
    • নাজনীন পলি হা হা হা অনেক ভালো লাগলো জেনে । অনেক ধন্যবাদ ও পরবর্তী সংখ্যার লেখা পড়ার আমন্ত্রণ রইলো ।
      প্রত্যুত্তর . ১৪ জানুয়ারী, ২০১৩
  • সূর্য
    সূর্য দ্রুতগতির সাথে হাপিয়ে ওঠা একটা মুখ যখন বলতে শুরু করলো তার রাতের অফুরন্ত নিশ্চল আবেগের কথা, মনে হলো এ আর নতুন কি, এমনতো কতকালই গিয়েছে, রসুইঘর পুড়ে যাওয়াটাতো মনপোড়ারই নামান্তর। ভেবেই ছিলাম একজন কেউ হারিয়েছে জীবন থেকে, শেষটায় এসে তো থ..... ছোট বোনের ...  আরও দেখুন
    প্রত্যুত্তর . ১৯ জানুয়ারী, ২০১৩
  • স্বাধীন
    স্বাধীন ছোট ছিমছাম গড়নের সুন্দর গল্প, দারুন টুইস্ট
    প্রত্যুত্তর . ২০ জানুয়ারী, ২০১৩
  • জালাল উদ্দিন  মুহম্মদ
    জালাল উদ্দিন মুহম্মদ বেশ লাগল গল্পকথন । ধন্যবাদ নাজনীন পলি।
    প্রত্যুত্তর . ২১ জানুয়ারী, ২০১৩
  • পন্ডিত মাহী
    পন্ডিত মাহী খানিকটা ঈর্ষা আসলেও এটি ঠিক গল্প হয়নি। এলোমেলো ভাব স্পষ্ট। লেখায় সময় দিন।
    প্রত্যুত্তর . ২৬ জানুয়ারী, ২০১৩
    • নাজনীন পলি ধন্যবাদ ।
      প্রত্যুত্তর . ২৭ জানুয়ারী, ২০১৩
    • পন্ডিত মাহী ভাই গায়ে পড়ে কথা বলা খুবই অপছন্দনীয় কাজ। আপনার কাছে মনে হতে পারে এটি নোবেল পাবার মতো লেখা। আমার কাছে নাও মনে হতে পারে। আমি আমার দৃষ্টিকোন থেকে বলেছি। এখানে আমি পাঠক। আমি বিশ্ব-সাহিত্যের সমালোচনা করতে আসিনি। আর দয়া করে কারো নাম নিয়ে কথা বলবেন না। কারন নাম নেওয়ার সময় আপনাকে জিজ্ঞেস করা হয়নি। আমি পড়ি কি পড়ি না সেটি আপনার জানার কথা নয়। একজনকে ব্যক্তিগত ভাবে সমালোচনা করতে হলে তার সম্পর্কে ভালো জানাশোনার প্রয়োজন। আপনি আমার সম্পর্কের কিছুই জানেন না। আর না জেনে কারো সম্পর্কে কিছু বলা খুবই খারাপ। আমি যদি নাজনিন পলির গল্প সম্পর্কে কিছু বলেই থাকি সেটি তার আর আমার কথার বলার বিষয়। তাকে ব্যক্তিগত ভাবে হেয় করিনি। তাই আপনার মোটা নাক এখানে না গলালেও চলত। আর মানিক মন্দ্যোপাধ্যায়ের কথা বলছেন, তিনি ভালো লেখক সন্দেহ নেই। কিন্তু তিনি যা লিখেছেন তাই নিশ্চই বিশ্ব-বিখ্যাত নয়। শুধু তার কেন, নামী-বেনামী সব লেখকের লেখাই আমার পড়া আছে। বরং আমি জোর দিয়ে বলতে পারি আমি যত বই পড়েছি তা আপনি পড়েননি। আমার পড়া বইয়ের সংখ্যা ২০০০ এর কম নয়। অযথা কাউকে আক্রমন না করে নিজের লেখা, নিজের পড়া দিকে মন দিন। আপনাকে কিন্তু সবার লেখায় পড়তে দেখি না। আর এখানের সবাই ভালো বললেই লেখাটা ভালো হবে তা নয়। লেখাটি ভালো, তবে ছোট করতে গিয়ে সেটি গল্প হয়নি। সত্য বলতে বলেছেন, সত্য বলেছি বলেই তো আপনার মত একজন উড়ে এসে মন্তব্য করলো। আপনি দয়া করে পড়ুন, আর অন্যকে সম্মান করে কথা বলতে শিখুন। ওতে ভদ্রতা প্রকাশ পায়।
      প্রত্যুত্তর . ৩০ জানুয়ারী, ২০১৩
    • পন্ডিত মাহী আমি যদি এখানে নিজের ভালো লাগার কথা সত্যি করে না বলে "অসাধারণ" বলে চলে যেতাম। তাহলে মিটে যেত। নাজনিন পলি, উনিও হয়তো আমার লেখা পরে অসাধারণ বলে চলে যেতো। তাতে কি কোন লাভ হতো। পাঠকের সমালোচনা লেখক পাবেন এটাই স্বভাবিক, আবার অসাধারন কিছু লিখলে ভালোবাসাও পাবেন। সেটি কি মন থেকে হওয়া উচিত নয়? এখানে বেশীরভাগ পাঠক তেল মারতে মন্তব্য করে। তারা চায় একটা কমেন্টের বদৌলতে যেন তার লেখায় কিছু ভোট পরে। একটা ছোট্ট উধাহরণ দেই। এখানে সবচেয়ে বেশী পড়া হয় "কবিতা"। গল্পের পাঠক খুবই কম। কেন বলতে পারেন? কারন কবিতা পড়ে খুব দ্রুত অনেকের দৃষ্টি আকর্ষন করা যায়। কিন্তু বলতে পারেন বাস্তবে ক'জন কবিতার বই কিনে পড়েন? নেহায়েত নগন্য। তাই বলি আপনাকে ও নাজনিন পলিকে সমালোচনা শত্রুতা করে করা হয় না। কখনো কখনো এটা লেখকের ভালোর জন্য। এখানে যারা লেখেন, বেশীর ভাগ লেখকই সাহিত্যের জগতে শিশু। আমি নিজের সম্পর্কে তাই বলবো। আমি খুব বড় কেউ না। তবে পাঠক হিসেবে ভালো-মন্দ বোঝার মত বুঝ আমার আছে। ব্যক্তিসম্পর্কে গঠন মুলক সমালোচনা করুন।
      প্রত্যুত্তর . ৩০ জানুয়ারী, ২০১৩
    • পন্ডিত মাহী এখানে যার সুন্দর, অসাধারণ বলেছে তারা যদি তাদের কথা অনুযায়ী ভোট করে থাকে এটি গল্প তালিকার উপরের দিকে থাকার কথা। কিন্তু বরাবরের মতোই অনেক লেখার মতো এটি নাও থাকতে পারে। বিচারকের দৃষ্টিও এটি খুব বেশী পাবে না বলে আমি মনে করি। আমার মনে করা ভুল প্রমানিত হতে পারে। তবে এমনটি এখানের শত শত লেখায় হয়ে আসছে, হবে, হবেই। কারন আমরা সত্যি বলি না, সত্যি বলাটাও অপছন্দ করি, মেনে নিতে পারি না। সমালোচনা যেই করবে সে অন্যের কাছে খারাপ হয়ে যাবে। আর "অসাধারণ" বললেই সে হবে প্রিয় পাত্র।
      প্রত্যুত্তর . ৩০ জানুয়ারী, ২০১৩
    • পন্ডিত মাহী ধন্যবাদ আপনাকে। কেউ ভুল বুঝলে, আর সেটি ধরে রাখলে আমি কিছু করতে পারি না। করার ইচ্ছাও নেই। তবে কোনদিন যদি আমাদের দেখা হয়, তবে মানুষ হিসেবে আমাকে খারাপ লাগবে না এটি জোর দিয়ে বলতে পারি। আপনার মন্তব্য এখনো ব্যক্তি আক্রমনের পর্যায়ে রয়েছে। আমি সেটি নিয়ে আর কথা বলবো না। তবে এটুকু বলবো, অনলাইনে ব্যক্তিকে না দেখে আমরা অনেক কিছু বলতে পারি, একটা নিরীহ কথাও মানুষকে খুব খারাপ ভাবে আঘাত করতে পারে। আমার লেখা যে অবস্থানেই থাকুক না কেন, আমি তাতে বিচলিত নই। আমি এখানে শিখতে এসেছি। শুধু এখানে নয়, আমি শিখি অনেকের কাছে। নিজেকে লেখক বা কবি কোনতাই দাবি করি না। কেউ দু'কলম লিখলেই তাকে লেখক বলা যায় না। আমার ক্ষেত্রেও তাই। পুরুষ্কার যেটি পেয়েছি নিতান্তই দূর্ভাব্যবশত। ওটি ভালো কোন লেখক পেলে আমি নিজেই খুশি হতাম। তবে এখানের পুরুষ্কার পাওয়া মানেই সে অসাধারণ কোন লেখক সেটি বুঝলে, ভালো লেখকদের প্রতি অবিচার করা হবে।
      প্রত্যুত্তর . ২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৩
    • এশরার লতিফ পারভেজ ভাই, পন্ডিত মাহীর ভালো লাগেনি তিনি বলেছেন...আমার ভালো লেগেছিল আমি বলেছি ..আপনার ভালো লেগেছিল আপনি বলেছিলেন ..এই-ই তো সুস্থ সাহিত্য চর্চা......এটা এখানেই বন্ধ করা ভালো.....
      প্রত্যুত্তর . ২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৩
    • পন্ডিত মাহী লতিফ ভাইয়ের সাথে একমত। অযথা আক্রমন-প্রতি আক্রমনে মানুষ হিসেবে এক অপরকে শুধু ছোট করা হবে। সেটি কাম্য নয়। লেখা নিয়ে গঠনমূলক আলোচনা-সমালোচনা করলে সারাদিন তর্ক করতে রাজি আছি।
      প্রত্যুত্তর . ২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৩
  • রনীল
    রনীল লেখনীতে কাব্য- গভীরতা দুটোই পাওয়া গেছে.. শেষ এর দিকে কিন্চিত তাড়াহুড়ো করেছেন মনে হচ্ছে... গল্প কবিতায় নিয়মিত আপনার লেখা পাব- এমন প্রত্যাশা করছি...
    প্রত্যুত্তর . ২৯ জানুয়ারী, ২০১৩
  • বিন আরফান.
    বিন আরফান. ভালো লাগলো.
    প্রত্যুত্তর . ৩০ জানুয়ারী, ২০১৩

advertisement