লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১ ফেব্রুয়ারী ১৯৭৩
গল্প/কবিতা: ৭৯টি

সমন্বিত স্কোর

৫.৩৫

বিচারক স্কোরঃ ২.৯৯ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ২.৩৬ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftবৃষ্টি (আগস্ট ২০১২)

ধর্ষিতা রমণী ও নির্ঘুম শর্বরী
বৃষ্টি

সংখ্যা

মোট ভোট ১২৬ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৫.৩৫

জসীম উদ্দীন মুহম্মদ

comment ৪২  favorite ৫  import_contacts ১,৬৩৮
০১
শেষ বিকেলের মরচে ধরা প্রভাকর ছায়ালোকে উড়ায় কেতন
কাঁদে বসুমতি, কন্ঠে অতীত রোমন্থন ও বৃষ্টি বিলাসের আহাজারি !
ক্রমেই তিলোত্তমা মহী, মহাকালের গর্ভে হতশ্রী ! অথচ
মহাবিশ্বের রাণী মেদিনী ! পত্র-পুষ্প- পল্লবে অবগুণ্ঠিত নববধূ
বহতা তটিনীর ঊর্মিমালা বিলাইত অমরাবতীর সুবাস
জলধর স্মিতহাস্যে জাগিয়ে দিত মৃতপ্রায় বিটপীর প্রাণের স্পন্দন
মহা মহিম মহীধর, চির সবুজ অটবি বাড়াইত শোভা
শতদলে মধুকর, পাদপে পাদপে বিহঙ্গম আঁকত চারুকলা
মাতঙ্গ, কলকণ্ঠ ,আশীবিষ, মৃগেন্দ্ররা রাজেন্দ্র গমনে ছড়াইত দ্যুতি
চতুর্দশী নিশাপতি সাজাইত বাসর, রত্নাকরের আননে মিটিমিটি হাসি !
০২
এখন বসুন্ধরার শর্বরী, ধর্ষিতা রমণীর মত নির্ঘুম কাটে
জলে-স্থলে-অন্তরীক্ষে চলে পরমাণু পরমাণু খেলা
গ্রীন হাউজ হাঁকে হুংকার ! ক্ষণে ক্ষণে বাড়ে বৈশ্বিক উষ্ণতা
চাতক করে না আর অম্বুদের আশা, তরুতে তরুতে বিরহ ব্যথা
অন্তজ খুঁজে ফিরে নীড়, হাসে মনুষ্যরূপী আজরাইল !
মরা গাঙের লোচনে নেই কাঁদার মত বারি
বিবর্ণ ধানের শীষ, লেজে-গোবরে দশা কিষাণ কিষাণির
বাদল দিনের মাদল খেলা, উঠোন ভরা কোলা ব্যাঙ
সোনা, কোনা কোথায় গেল ? হারিয়ে গেল ঘ্যাঙর ঘ্যাঙ
বসুধা ফিরে পাক হারানো যৌবন, রিমঝিম লহরীতে হেসে উঠুক মৌবন । ।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
  • শাহ্‌জাহান কবীর
    শাহ্‌জাহান কবীর শব্দের ঝংকারে অনন্য কবিতা ভাল লেগেছে। ধন্যবাদ কবি।
    প্রত্যুত্তর . ১৩ আগস্ট, ২০১২
  • সানাউল্লাহ নাদের
    সানাউল্লাহ নাদের সমসাময়িক বসুধার নিরাবরণ ছবিটা মিটিমিটি হাসছে যেন আড় চেয়ে। সত্যি অপূর্ব শৈলী ।
    প্রত্যুত্তর . ১৩ আগস্ট, ২০১২
  • Sisir kumar gain
    Sisir kumar gain সুন্দর অর্থবহ কথামালা।বেশ ভাল লাগল।শুভ কামনা।
    প্রত্যুত্তর . ১৪ আগস্ট, ২০১২
  • বশির আহমেদ
    বশির আহমেদ এ যে দেখছি আরেক মধুসুদন । চমৎকার কবিতা তবে বর্তমান যুগে গুরু গম্ভীর ভাষার কবিতা কেউ আর তেমন একটা পড়তে চায় না । আপনার ক্ষমতা আছে ভাল কবিতা লেখার । সহজ ভাষায় ও শব্দে তাই করূন । অযাচিত মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চাচ্ছি ।
    প্রত্যুত্তর . ১৮ আগস্ট, ২০১২
  • মিলন  বনিক
    মিলন বনিক সুন্দর কবিতা...গ্রীন হাউজ হাঁকে হুংকার ! ক্ষণে ক্ষণে বাড়ে বৈশ্বিক উষ্ণতা....অনেক ভালো লাগলো...শুভ কামনা...
    প্রত্যুত্তর . ২৩ আগস্ট, ২০১২
  • রোদেলা শিশির (লাইজু মনি )
    রোদেলা শিশির (লাইজু মনি ) মড়া গাঙ্গের লোচনে নেই কাঁদার মত বারি ... ! কঠিন কঠিন ... শব্দের জঞ্জাল .... ! তবু অনেক সুন্দর ...কবিতা ... !!
    প্রত্যুত্তর . ২৬ আগস্ট, ২০১২
  • শিউলী আক্তার
    শিউলী আক্তার শব্দ চয়ন কঠিন হলেও ভাব চমৎকার ! ভাল লাগলো শুভ কামনা ।
    প্রত্যুত্তর . ২৬ আগস্ট, ২০১২
  • সালেহ  মাহমুদ
    সালেহ মাহমুদ কবি মুধুসূদন দত্তের ছায়া দেখতে পাচ্ছি আপনার মাঝে। ভাই চালিয়ে যান, শব্দের ধ্বনি টংকারে জাগুক সকল হিয়াধিকারী। ধন্যবাদ আপনাকে।
    প্রত্যুত্তর . ২৮ আগস্ট, ২০১২
  • আহমেদ সাবের
    আহমেদ সাবের "কাঁদে বসুমতি, কন্ঠে অতীত রোমন্থন" - একদা "বহতা তটিনীর ঊর্মিমালা বিলাইত অমরাবতীর সুবাস"। আর আজ সেখানে "গ্রীন হাউজ হাঁকে হুংকার"। আমাদেরও কবির মত আকাঙ্ক্ষা - "বসুধা ফিরে পাক হারানো যৌবন"। অসাধারণ থিম। শক্তিশালী লেখনী...  আরও দেখুন
    প্রত্যুত্তর . ২৯ আগস্ট, ২০১২
  • খন্দকার নাহিদ হোসেন
    খন্দকার নাহিদ হোসেন জসীম ভাই, আপনার ভাবনা ভালো... গুছিয়ে লিখতেও পারেন। তবে শব্দের খেলায় আপনি বড় দুর্বল। শব্দের সে জাদু চাই যে জাদু আমাদের হৃদয়ে হাত রাখবে। "তটিনীর ঊর্মিমালা" নদী দেখে এ ধরনের শব্দমালা আজকাল বলা তো দূরে থাক আমরা কিন্তু ভাবিও না। তো কবি কেন সে শব্দমাল...  আরও দেখুন
    প্রত্যুত্তর . ৩০ আগস্ট, ২০১২
    • জসীম উদ্দীন মুহম্মদ নাহিদ ভাই । সালাম নিবেন । আপনার সু পরামর্শের জন্য আমি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি । তবে পৃথিবীর অতীত রূপের বর্ণনা দিতে গিয়ে আমি ইচ্ছে করেই এ ধরনের শব্দ মালা ব্যবহার করেছি । ধন্যবাদ আপনাকে ।
      প্রত্যুত্তর . ৩১ আগস্ট, ২০১২

advertisement