বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১০ ফেব্রুয়ারী ১৯৬৭
গল্প/কবিতা: ১৯টি

সমন্বিত স্কোর

৪.৩১

বিচারক স্কোরঃ ২.৭৩ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৫৮ / ৩.০

keyboard_arrow_leftদিগন্ত (মার্চ ২০১৫)

প্রজাপতি ক্রসিং
দিগন্ত

সংখ্যা

মোট ভোট ২১ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.৩১

জালাল উদ্দিন মুহম্মদ

comment ২২  favorite ১  import_contacts ৭৯৯
ঐখানে মাটি ছুঁয়েছে আকাশ
আকাশ ছুঁয়ে দেখবো বলে হেঁটেছি বহুদিন, বহু পথ
মেঠো পথ, আলপথ পেরিয়ে ভিনগাঁ, অতঃপর আকাশ
মাঝখানে বক উড়ে চিল উড়ে নলিনের বিল
ঝাসির নদী
কাকচক্ষু জল
ধানের ক্ষেত
হেলেঞ্চার ঝোপ, অতঃপর
দিগন্তজোড়া প্রজাপতি ক্রসিং ।

সর্প দংশন ভেবে সেঁজুতির পা-চোষা
ভুলিনি;
সেদিনও আকাশ দেখা হয়নি আমার ।
আজও আকাশে সেঁজুতি উড়ে
উড়ায় সাতরঙ ঘুড়ি
শুধু লাটাই খানা জমা আছে কার করবে
জানা হয়নি, আর
অংক শেখা হয়নি আজও
শুধু চলতি, সরল ……
শেখা হয়নি সুদকষা, মানসাঙ্ক, ক্যালকুলাস
স্ফুটনাঙ্ক বেড়ে যায় জলের শিশি।

অঘ্রানে ঘ্রাণ আসে পাঁচিল ভেঙে
সারি সারি পাকা ধান মৌ মৌ অথচ
ভোরের শিশির জমে আছে পাঁজরে;
খাঁচা ভেঙে আসুক হাওয়া
জ্যোতিকা, অনামিকা, মালবিকা
সিঁদ কাটুক মন্দিরে, অতঃপর
শূন্য খাঁচা ।

এখনো এখানে আকাশ নীল
এখনো দিগন্তে ভাসে সোনালী চিল;
অগুণতি স্বপ্ন আঁকে বাঁশঝাড়, ঘাসফড়িঙ
স্বপ্ন আঁকে পানকৌড়ি ডুব
মাছরাঙা চোখ
ডানকানা সাঁতার
দোয়েলের শিস।

আজ আমি চিনি পচা শামুক
অন্ধ কামুক;
তবুও সত্যি নিউটন গতি
দিনান্তে ফিরে এসো সেঁজুতি ……
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন