লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২০ ডিসেম্বর ১৯৯৭
গল্প/কবিতা: ৩৩টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

৫১

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftমা (মে ২০১১)

মায়ের প্রীতি
মা

সংখ্যা

মোট ভোট ৫১

মোঃ শরীফুল ইসলাম শামীম

comment ২৭  favorite ৩  import_contacts ৯৭৩
আজ আর দাওয়ায় বসে, কেউ কথা বলে না
ঢেঁকিতে আর ধান ভানার শব্দ হয় না,
এ বাড়ীতে আজ উনুনে অনল জ্বলে না
এ বাড়ীর দিকে কেউ ফিরেও চায় না।
উঠানে উঠানে পরে আছে
গাছের শুকনো পাতা
পুরো বাড়ী কে নিধন করেছে
গুল্ম লতা
উঠানের কানায় কানায় পরে আছে
খাপরা
বাড়ীটিকে দেখতে মনে হয় লোপড়া।
সেই বাড়ীর পার্শে আছে
এক খানা কবর
সেই কবরে নিশান বাবু কান
রেখে শুনতে চায়
মায়ের খবর।
বারবার চিৎকার দিয়ে বলে
“ মাগো এ ঘর থেকে উঠে
আমার ঘরে আস,
মাগো আমার ভীষণ খতরা
তুমি ছাড়া আমার পার্শে আসবে কারা
মাগো তুমি কেন দিচ্ছ না সাড়া?

বাইশ বছর ধরে
চোখের বারি ঝড়ে
পুষ্প ফুটে ঝড়ে পরে
নিশান বাবু তরে,
তবু যেন কবর থেকে
কোন দিন নাহি সরে
যদিও রোদ বৃষ্টি ঝরে।
এক সময় এ বাড়ী ছিল নিশি গন্ধন
মায়ের কোলে মাথা রেখে
গল্প শুনত
যখন হত সন্ধ্যা,
খোশালে ভরা ছিল বাড়িখানা
এখন এ বাড়ির দাম নেই এক আনা।

হারিয়ে গিয়ে গিয়েছে সেই
মিষ্ট মাথা বানী
মায়ে যখন ডেকে বলত-
ওরে খোকা তোর দুষ্টুমি আমি জানি
আমার চোখ ছেড়ে, নিয়ে আয়
কল থেকে পানি”
আজ নেই সেই মধুর ডাক
এ কোথায় থেকে যেন
ঝাকে ঝাকে কাক
এ বাড়ী এখন নীরব নীরস হয় আছে
বাড়ীর পাশ থেকে গুঞ্জনর আওয়াজ আসে

নিশান বাবু কেঁদে চলেছে নিরন্তর
গুঞ্জতনায় ফেটে যায় তার অন্তর
মায়ের কাছে যে খত দিবে
নেই তার কাছে দিঠি
মাও দেয়নি কোন দিন চিঠি
আজ সে পায় না মায়ের প্রীতি
কাঁদতে কাঁদতে তার জীবন হয়েছে ইতি
আজ সব কিছুই হয়েছে স্মৃতি।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement