লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১ মার্চ ২০১৯
গল্প/কবিতা: ৪৮টি

সমন্বিত স্কোর

৪.৮৩

বিচারক স্কোরঃ ২.৮২ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ২.০১ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftগর্ব (অক্টোবর ২০১১)

রক্ত দিয়েছে স্বাধীনতা
গর্ব

সংখ্যা

মোট ভোট ৮৭ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.৮৩

ডাঃ সুরাইয়া হেলেন

comment ১০২  favorite ১২  import_contacts ১,৩৭১
আমি রক্ত দেখেছি…. !
তাজা লাল টকটকে,টগবগে ঝরে পড়া রক্ত,
চাপচাপ রক্ত,উষ্ণ গড়িয়ে পড়া রক্ত,
ফোঁটা ফোঁটা বিন্দু বিন্দু রক্ত,
গাঢ় তেঁতুল সস রং জমাট বাঁধা রক্ত,
কালো কুচকুচে আলকাতরা শুকিয়ে যাওয়া রক্ত !
৭১-এর ৯মাসের,৩০লক্ষ শহীদের রক্ত এগুলো !

একদিন এক ছোট্ট চঞ্চল চড়ুই,তার ডানায় আনন্দ মেখে
জানালা গলে আমার ঘরে ঢুকে,উড়ে উড়ে হুটোপুটি করছিলো!
হঠাৎ ঘুরন্ত বৈদ্যুতিক পাখার ব্লেডে,তার মাথা ধড় থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেলো!
কোন নিপুণ বিখ্যাত সার্জন যেমনিভাবে নিখুঁত অপারেশনে কোন অঙ্গপ্রত্যঙ্গ কাটে,
ঠিক তেমনি মসৃণ ছিলো কাটা গলা আর শরীরটা !
আলতা আর সিঁদুর-গোলা রক্তে লাল হয়ে গেলো মেঝে!
ছোট্ট শরীরটা উষ্ণতা নিয়ে তখনো তড়পাচ্ছিলো,
সামান্য প্রতিবাদ!অল্প সময়েই সমাপ্তি !
কিন্তু ঘটনাটা একটা মৃত্যু—অনাকাঙ্খিত মৃত্যু !
আজো সে দৃশ্য মনে পড়লে আমার শরীর থরথর কাঁপে,
গা গুলিয়ে চেতনাহীনতার অন্ধকারে ডুবে যেতে থাকি আমি !

কিন্তু ৭১-এ এক সাগর রক্ত,যেটা ছিলো আমার বাবা,চাচা,
মামা,ভাই,আত্মীয়,বন্ধু,প্রতিবেশি,চেনা-অচেনা স্বদেশী বাঙালী ভাইবোনের,
সেই রক্ত দেখে আমি ভয় পাইনি,চেতনা হারাইনি,
হয়েছি সাহসী,প্রতিবাদী,স্বাধীনতাকামী এক বাংলাদেশী !
সে রক্ত আমার হৃদয়ের ভেতর পুরোটা ধারণ করেছি,
শিরায় শিরায় প্রতিটি কোষে তা আজও প্রবাহিত হয়ে
আমাকে মনে করিয়ে দিচ্ছে,….
ত্রিশ লক্ষ বীর শহীদ আর বীরাঙ্গনা মা-বোনের আত্মত্যাগের কথা,
যারা আমাকে একটি স্বাধীন দেশ আর পতাকা দিয়েছে !
এ আমার অহঙ্কার....

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
  • রোমেনা আলম
    রোমেনা আলম ত্রিশ লক্ষ প্রানের বিনিময়ে পেয়েছি ৭১, আমাদের গর্ব, অনেক সুন্দর কবিতা।
    প্রত্যুত্তর . ২৪ অক্টোবর, ২০১১
  • সূর্য
    সূর্য অনেক ভাল লিখেছন, মনে হয়েছে চাক্ষুস দেখার লিখিত রূপ।
    প্রত্যুত্তর . ২৬ অক্টোবর, ২০১১
  • আহমাদ মুকুল
    আহমাদ মুকুল সুরাইয়া আপা/ আমাদের মুক্তিযুদ্ধ, এ এমন এক জায়গা, যা নিয়ে লিখতে গেলে যত আবেগ-অনুভূতি সমস্ত শক্তি নিয়ে শব্দ হয়ে বের হয়। আপনার কবিতা তার প্রমাণ। চিকিৎসা অস্ত্র কিছুসময় দূরে রেখে কলম নিয়ে যখন বসেন, তখন সবটুকু লেখাতেই ঢেলে দেন, বোঝা যায়। খুব সুন্দর। মনে জায়গা ...  আরও দেখুন
    প্রত্যুত্তর . ২৭ অক্টোবর, ২০১১
  • আনিসুর রহমান মানিক
    আনিসুর রহমান মানিক অনেক ভালো লাগলো/
    প্রত্যুত্তর . ২৮ অক্টোবর, ২০১১
  • ডাঃ সুরাইয়া হেলেন
    ডাঃ সুরাইয়া হেলেন হ্যাঁ মুকুল ,বাস্তবে দেখা চিত্র,লেখায় কতটুকু আনতে পেরেছি জানি না!তবে আমি সরল ভাষায়,সহজভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করি সবসময় ।ধন্যবাদ আপনাকে ।
    প্রত্যুত্তর . ২৮ অক্টোবর, ২০১১
  • ডাঃ সুরাইয়া হেলেন
    ডাঃ সুরাইয়া হেলেন অনেক ধন্যবাদ মানিক ।ভালো থাকবেন ।
    প্রত্যুত্তর . ২৮ অক্টোবর, ২০১১
  • অজয়
    অজয় আপু অসাধারণ আর কিছু যে মন্তব করব তা খুঁজে পাছিনা শুভ কামনায় ...ভোট করলাম
    প্রত্যুত্তর . ২৯ অক্টোবর, ২০১১
  • ফাতেমা প্রমি
    ফাতেমা প্রমি ভালো আছি ম্যাম। আপনি ভালো আছেন?
    প্রত্যুত্তর . ৩০ অক্টোবর, ২০১১
  • ডাঃ সুরাইয়া হেলেন
    ডাঃ সুরাইয়া হেলেন অনেনক ধন্যবাদ অজয়!ভালো আছেন তো?
    প্রত্যুত্তর . ৩০ অক্টোবর, ২০১১
  • ডাঃ সুরাইয়া হেলেন
    ডাঃ সুরাইয়া হেলেন হ্যাঁ প্রমি,ভালো আছি আমিও ।আপনি ভালো থাকুন নিরন্তর ।
    প্রত্যুত্তর . ৩০ অক্টোবর, ২০১১

advertisement