মৃত্যু পরবর্তী কথা ভাবলেই ভয় জেগে উঠে প্রাণে। এই লেখায় মূলতঃ পরকালের ভয়ের কথাই বুঝানো হয়েছে।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১৭ আগস্ট ১৯৭৭
গল্প/কবিতা: ৯৮টি

সমন্বিত স্কোর

২.৬৪

বিচারক স্কোরঃ ০.৮৪ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৮ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - ভয় (ডিসেম্বর ২০১৮)

আপন নয় আমার এ ইহ
ভয়

সংখ্যা

মোট ভোট প্রাপ্ত পয়েন্ট ২.৬৪

এই মেঘ এই রোদ্দুর

comment ৪  favorite ০  import_contacts ৬৯
কাছের মানুষগুলো না বলে না কয়ে হুটহাট চলে যায়
গলে যায়, পঁচে যায়, না ফেরার দেশে রয়ে যায়,
এইতো দেখি আবার ঘাড় ফিরিয়ে দেখি নাই
বন্ধ চোখে ডেকে যেনো বলে সময় ফুরালো এবার তবে যাই!

ফেটে যায় ভিতর ফেটে যায়, ফেটে যায়-চোখ যায় ফেটে
কপালে মৃত্যু তিলক রেখেছেন প্রভু সেঁটে!
কে কার, কার কে? নিজেই কেবল নিজের, আহা কষ্ট
দিন যায় মোহ কেটে যায়,
চোখের সম্মুখ জরাজীর্ণ জীবন পষ্ট।

কত পরিচিত মুখ হলো অপরিচিত
ছিঁড়ে গেলো সহসা বন্ধনের সূতো
হুম মানুষ মরে যায়, কথা রেখে চলে যায়
মৃত্যুর মিছিলে ঝরে হাহাকার অবিরত।

ভাল লাগে না দুনিয়ার রঙ্গমঞ্চ, ভুলে যাই সব ভুলে যাই
ঠোঁট উল্টিয়ে বলে যাই আনমনায়, এই দুনিয়া ধুচ্ছাই।
খিলখিলিয়ে হাসলেই, ধক ধক কেঁপে উঠে বুক
জলে ভেসে যায় হা হুতাশ, আহা এই দুনিয়ার যত সুখ!

কিছুই না, না না না কিছুই না, ক্ষণস্থায়ী সুখ, আঁকড়ে ধরা কড়ি
ব্যাংক ব্যালেন্স, বিত্ত বৈভব, প্রাসাদ অট্টালিকা- সময় বসায় বুকে বার্ধক্যের ছুরি।
তবু সেজে থাকি, তবু উত্তম রঙচঙা পোষাকে ঢেকে থাকি
এ কেবল মৃত্যু ভুলে থাকার মন্ত্র, দেই নিজেকেই ফাঁকি!

ভয় লাগে খুব ভয়, বন্ধ চোখে দেখি গোর, মাটি, ঘুরঘুট্টি আঁধার
কি হবে আমার, কে হবে আমার, কেমন করে থেকে যাব একা
মিটে না আশ, হয় না সমাধা এ অলীক ধাঁধার।

আনন্দ উল্লাস সব মাটি লাগে ছাই লাগে, লাগে আমায় বিমর্ষ
কিসের তরে তবে হিংসা অহম ঈর্ষা স্বার্থ, কিসের তরে এ অমর্ষ!
ক্ষমা করো আমার আল্লাহ, দাও কাটিয়ে দুনিয়ার মোহ
আপন হবে আমার মাটি, আঁধারে একাকিত্বে, নয় আমার এই ইহ।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement