বর্ণনা: তুমি আমার সকাল সন্ধ্যা রাত্রি ভর দুপুর
তুমি আমার বাংলার বুকে হেটে যাওয়া বহুদূর
তুমি আমার ব্যস্ত সকাল-তত্রস্থ সন্ধ্যা বেলা
তুমি আমার নদীর বুকে ঝরনার জল রিনিঝিনি সারা বেলা
তুমি আমার চপল প্রিয়ার অদ্ভুত চাহনি
তুমি বাংলার বুকে ক্রুদ্ধ সাইক্লোন- সুলভে অশনি
তুমি নদীর বুকে কলকল রব, চলোচলো দাড় টানা
তুমি মায়ের সাবধান বাণী সবখানে যাওয়া মানা
তুমি বাবার হাতের কমল আদর-ভালবাসার মানে
তুমি ভাবির সাথে দুষ্টুমি আর কথা কয় কানে কানে
তুমি সভা সমিতির নিঃসৃত বাণী -বিজয়ের স্লোগান
তুমি বোমা হামলায় নিহত প্রাণের স্মৃতিতে বলিয়ান
তুমি কষ্টের সাদা বালুচরে বালির বানানো ঘর
তুমি হাত পথে পরে থাকা ঝরা পাতা মর্মর
তুমি মায়ের কলে শিশুর কান্না, আনন্দ কলরোল
তুমি দুম দুমাদুম মাদুম তাং তাং পূজায় বাজানো ঢোল
তুমি প্রিয়ার কাছে না বলা ভাষার তোতলা উচ্চারণ
তুমি সন্ধে হলে বয়ে যাওয়া মৃদুমন্দ সমীরণ
তুমি বহু কষ্টে বেচে থাকা কৃষকের হাসি মুখ
তুমি প্রেমিকার কাছ থেকে পাওয়া প্রথম প্রেমের পত্র
তুমি আমার কবিতা লেখার প্রথম কেটে দিয়া ছত্র
তুমি বাংলাদেশের সবার প্রাণের স্বপ্নিল স্বাধীনতা
তোমাতে রয়েছে সমস্ত প্রেম উপমার কতকথা.....