গল্প করতে আসিনি আজ হে রমণী, ভালোবাসার হিমেল বাতাসে উষ্ণ হতেও না, এসেছি মুক্তিরগান শুনাতে কি'বা সান্ত্বনা দিতে। অনন্যেপায় অবলম্বন করে ভালোবাসা টিকে রাখার বৃথা প্রচেষ্টা কেবল বোকামী-ই নয় কি? তুমি নেহায়েত দূর্বল, অল্পতেই নুয়ে পড়ো এমন কি নিজোর মহামূল্য সম্বলটুকু অনায়সে হাত ছাড়া হতে বাঁধা দিতেও ভীষন অক্ষম। আত্মরক্ষায় তুমি নিরস্ত্র, তুমি ঢের আবেগী ভালোবাসার ক্ষনিক মোহে সহজ সরল বেসামাল, অন্ধ বিশ্বাসে ক্ষয়ে ফেল দম্ভের আপন আত্মমর্যাদা । মনে রেখ- হে ললনা, যুবতী, অবলা, জগত নন্দিনী এ সতীত্ব তোমার নিজের না, অন্য কারো আমানত তুমি রঙ্গীন চোখে আজ যা ভাবছ ঠিক, আসলে তা-ই ভুল। তুমি না মা, তবে কেন উচ্ছন্নে লুটে দাও তোমার সর্বস্ব ? ধর্ষিতা হতে মদদ জোগাও নরপশুর কাম লালসার, পতিতা বৃত্তিতে বাড়াও পা অশুভ ধিক্কৃত লোভের মুখে। তুমি কি জানো ? তোমার প্রতি অধীর উন্মুখ হয়ে আছে কিছু লিপ্ত মানুষরূপী লেহ্য কুকুর অথবা শকুনের চোখ, আজ যাকে তুমি বয়সের উত্তেজনায় সুহৃদ ভাবো আসলে সে তোমার আমৃত্যু চির জগন্য প্রত্যক্ষ শত্রু। সাবধান! সে তোমারতো ভালো চায়েনা, বরং তোমার ক্ষতিই তার নিতান্ত মনোবাসনা।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১০ জানুয়ারী ১৯৮৮
গল্প/কবিতা: ১২টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - ভ্যালেন্টাইন (ফেব্রুয়ারী ২০১৯)

ভালোবাসা ও ১৪ই ফেব্রুয়ারী
ভ্যালেন্টাইন

সংখ্যা

বালোক মুসাফির

comment ৩  favorite ০  import_contacts ১৭১
গল্প করতে আসিনি আজ হে রমণী,
ভালোবাসার হিমেল বাতাসে উষ্ণ হতেও না,
এসেছি মুক্তিরগান শুনাতে কি'বা সান্ত্বনা দিতে।
অনন্যেপায় অবলম্বন করে ভালোবাসা টিকে রাখার
বৃথা প্রচেষ্টা কেবল বোকামী-ই নয় কি?
তুমি নেহায়েত দূর্বল, অল্পতেই নুয়ে পড়ো
এমন কি নিজোর মহামূল্য সম্বলটুকু অনায়সে
হাত ছাড়া হতে বাঁধা দিতেও ভীষন অক্ষম।
আত্মরক্ষায় তুমি নিরস্ত্র, তুমি ঢের আবেগী
ভালোবাসার ক্ষনিক মোহে সহজ সরল বেসামাল,
অন্ধ বিশ্বাসে ক্ষয়ে ফেল দম্ভের আপন আত্মমর্যাদা ।
মনে রেখ- হে ললনা, যুবতী, অবলা, জগত নন্দিনী
এ সতীত্ব তোমার নিজের না, অন্য কারো আমানত
তুমি রঙ্গীন চোখে আজ যা ভাবছ ঠিক, আসলে তা-ই ভুল।

তুমি না মা, তবে কেন উচ্ছন্নে লুটে দাও তোমার সর্বস্ব ?
ধর্ষিতা হতে মদদ জোগাও নরপশুর কাম লালসার,
পতিতা বৃত্তিতে বাড়াও পা অশুভ ধিক্কৃত লোভের মুখে।
তুমি কি জানো ? তোমার প্রতি অধীর উন্মুখ হয়ে আছে
কিছু লিপ্ত মানুষরূপী লেহ্য কুকুর অথবা শকুনের চোখ,
আজ যাকে তুমি বয়সের উত্তেজনায় সুহৃদ ভাবো
আসলে সে তোমার আমৃত্যু চির জগন্য প্রত্যক্ষ শত্রু।
সাবধান! সে তোমারতো ভালো চায়েনা, বরং তোমার ক্ষতিই
তার নিতান্ত মনোবাসনা।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement