দিনে দিনে ঋণ মোর তোমার কাছে,
বাড়তে বাড়তে বিশাল হয়েছে অবশেষে।
আধারের মাঝে যে আলোর প্রদীপ জ্বেলেছিলে,
ছোট্ট সে শিখা নয়ত চন্দ্র সূর্য সম তবুও সে ছিল তা অনেক বড়
জীবনের অস্ত্বিত বুঝতে মরনকে ভুলে।
ঋনী করে চলে যাও দুরে,কোন সে এক অচিন পুরে।
হয়ত পারব না কোনদিন ঋনের এক বিন্দু শোধ দিতে,
তব দান রহিবে মোর জীবনের নব আলোতে আলোতে।
সে আলোক ধারায় মোর জীবনের প্রবাহ বহিবে এক স্রোতে,
মাঝে মাঝে মনে করে ভাসিব অনাবিল খুশিতে।
মম ছোট্ট ভুবনের রিক্ত মৃত্তিকায় তোমার পদ স্পর্শ মাখা,
ধন্য করে গেলে পৃথিবী আমার তোমার যে কত স্মৃতি আঁকা।
মোর তুচ্ছ দেবালয়ে তোমার নিজ হাতের আলপনা,
না গাথা মালার ফুলে ফুলে সৌরভে সে আঙিনা।
শুধু দেবতার তরে অঞ্জলী করে দেয়া হয়নি সে ফুল,
তারপরেও আমার ভুবনে সুবাস ছড়াতে হয়নি তোমার ভুল।
বিপুল আলোর সম্মুখে দু হাটু মাটিতে গুজে আজ মম অন্তরের প্রার্থনায়,
আশা মম ভরুক আলোয় তোমার জীবন পূর্ণ হক সবই সুখের ধারায়।
অজস্র দানে ধন্য করে গেছো মোরে বিদায় বেলায়,
বন্ধু হয়েছিলে একদিন তুমি হঠ্যাত্ এক শিউলী তলায়।