স্বাধীনতা তুমি
বিক্ষুব্ধ জনতার প্রতিবাদী হুংকার,
নিপীড়িত আত্মার মর্মান্তিক হাহাকার।
স্বাধীনতা তুমি
পরাধীনতা থেকে মুক্তির নিঃশ্বাস,
নতুন স্বপ্ন নিয়ে বাঁচার বিশ্বাস।
স্বাধীনতা তুমি
অগণিত অনূঢ়ার নির্মম বলাৎকার,
অজস্র মায়ের চাপা আত্ম চিৎকার।
স্বাধীনতা তুমি
অসহায় শিশুর কাকুতি মিনতি,
কালা বোবা পঙ্গুর আকুল বিনতি।
স্বাধীনতা তুমি
লাখো মানুষের তপ্ত দীর্ঘশ্বাস,
সুখের প্রত্যয়ে দৃঢ় আত্মবিশ্বাস।
স্বাধীনতা তুমি
শ্রমিকের ঘাম; নেতাদের ভাষণ,
বিতাড়িত পাক-সেনাদের শাসন।
স্বাধীনতা তুমি
শৃংখলমুক্ত ডানা মেলা বিহঙ্গ,
সৃষ্টি সুখের উল্লাস তরঙ্গ।
স্বাধীনতা তুমি
আবাল-বৃদ্ধ-বনিতার নির্মল হাসি,
অনাগত দিনের স্বপ্ন রাশি রাশি।
স্বাধীনতা তুমি
নদী কিনারে দোলায়িত কাশফুল,
গাঁয়ের কিশোরীর দোলনার দোল।
স্বাধীনতা তুমি
কৃষকের অবারিত ফসলের মাঠ,
কোমল শিক্ষার্থীর শিক্ষার পাঠ।
স্বাধীনতা তুমি
শ্রমিকের ঘামে ভেজা গতর,
সংসদ ভবনের খোলা চত্বর।
স্বাধীনতা তুমি
মরণ-যুদ্ধে আগুয়ান নির্ভীক সৈনিক,
সত্যের নিরপেক্ষতায় প্রকাশিত দৈনিক।
স্বাধীনতা তুমি
অপরাজেয় বাংলার মূর্ত প্রতীক,
পতাকার লাল সবুজের ঝিলিক।
স্বাধীনতা তুমি
যাদুকরের হাতের যাদুর কাঠি,
আমার বৃদ্ধ দাদার চলার লাঠি।
স্বাধীনতা তুমি
কালো রাত্রি শেষে সোনালী ভোর,
আমার কবিতার খাতা; গানের সুর।