লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ৮ আগস্ট ১৯৯৯
গল্প/কবিতা: ১টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftগল্প - প্রেম (ফেব্রুয়ারী ২০১৭)

তাহসিন
প্রেম

সংখ্যা

ইব্রাহিম বিন শওকত

comment ১  favorite ০  import_contacts ৭৪৩
বিকট শব্দ! একটি গাছের আড়ালে আশ্রয় নিল তাহসিন। খুব পরিচিত এবং ভয়ংকর শব্দ এটা। এরকম শব্দ প্রতিদিনই শুনতে হচ্ছে,দেখতে হচ্ছে মুহূর্তে দালান ধসে যাওয়া।অসংখ্য পরিচিত-অপরিচিত মৃতদেহ। মজলুমের আর্তনাদে প্রকম্পিত হচ্ছে আলেপ্পোর আকাশ বাতাশ। তবুও থামছেনা ক্ষমতালোভী বাশার আল আসাদ ও বিদ্রোহীদের যুদ্ধ।
আলেপ্পো যেন চিৎকার করে বলছে, হে বাশার আল আসাদ এবং বিদ্রোহীরা! তোমরা যুদ্ধ থামাও। আমি আর লাশের বোঝা বহন করতে পারছিনা, মজলুমের আর্তনাদ আর সহ্য করতে পারছিনা।আমার মনে হচ্ছে আমি এখন দ্বি-খন্ডিত হয়ে যাবো।আকাশ ভেঙ্গে পড়বে আমার উপর পহাড় ধসে পড়বে। আমি শেষ হয়ে যাবো আর বাঁচতে পারবো না।কিন্তু আমি তো বাঁচতে চাই। যুদ্ধ থামাও! আমাকে তোমরা বাঁচাও....
আলেপ্পোর এই আকুতি যেন তাদের কানে প্রবেশই করছেনা।তারা যেন এখন যুদ্ধের নেশায় উন্মাতাল হয়ে আছে।তাদের এই ধ্বংসাত্মক থাবা(যুদ্ধ)থেকে রেহাই পায়নি তাহসিনের মত ছোট শিশু ও তার পরিবার।
বাবা পড়ছিলেন নামাজ। মা করছিলেন রান্না।তাহসিন করছিল খোলা মাঠে খেলা।
এমন সময় হলো হঠাৎ এই বিকট শব্দটা। তাহসিন দৌড়ে একটি গাছের আড়ালে আশ্রয় নিল। এ শব্দ আগেও শুনেছে। এটা হলো বিমান হামলার শব্দ। আজ একেবারে ওর সামনেই হলো এ হামলা ।তাহসিন তাদের বাড়ির দিকে তাকিয়ে দেখলো বাড়ি ভেঙ্গে মাটির সাথে মিশে গেছে। ও এটা দেখে মা! মা! চিৎকার করে বাড়ির দিকে দৌড় দিল। মাঝপথ যেতেই কয়েকটি গুলি এসে বিঁধল ওর ওই ছোট্ট বুকে। রক্ত ঝরছে,পড়ে গেল ওর নিথর দেহটি। রক্তে লাল হয়ে গেল আশপাশ। শেষ হয়ে গেল তিনটি প্রাণ একটি পরিবার। কী দোষ ছিল, এই ছোট্ট শিশুটির আর এ পরিবারের? শুধু এই একটি শিশু আর একটি পরিবার নয় প্রতিদিন ওদের ওই যুদ্ধ নামক হিংস্র থাবায় প্রাণ কেড়ে নিচ্ছে তাহসিনের মত হাজার হাজার শিশুর। ধ্বংস করে দিচ্ছে শত শত পরিবার। এভাবে আর কত রক্ত চায় ওরা... আর কত পরিবারকে ধ্বংস করতে চায়...

ওদের সাথে নিরীহ মানুষগুলোর কিসের শত্রুতা।
হে আল্লাহ!আপনি অনুগ্রহ করে কোন সাহায্যকারী পাঠান। যে ক্ষমতালোভী বাশার আল আসাদ এবং বিদ্রোহীদের দমন করবে। আলেপ্পোকে বাঁচাবে। নিরাপত্তা দিবে প্রতিটি শিশু এবং পরিবারকে । হে রাব্বুল আলামীন কবুল করে নাও তোমার মজলুম বান্দাদের এই আকুতি।

advertisement

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement