বৃক্ষ কবিতাটি মানুষের সাথে তুলনা করা হয়েছে। মানুষ জীবন ধারণে কঠোরতা অবলম্বন করে কিন্তু বৃক্ষ তা করে না তাই মানুষের জীবন ধারণে বৃক্ষের মতো হওয়ার আবেদন করা হয়েছে এ কবিতায়।মানুষ কঠোরতা ভুলে বৃক্ষের মতো পরোপকারি হয়ে উঠবে এ প্রার্থনা ।অতএব কবিতাটি সামঞ্জস‌্যপূর্ণ।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১৪ এপ্রিল ২০১৮
গল্প/কবিতা: ২৭টি

সমন্বিত স্কোর

২.৩৭

বিচারক স্কোরঃ ১.১৭ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.২ / ৩.০

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - কঠোরতা (মে ২০১৮)

বৃক্ষ
কঠোরতা

সংখ্যা

মোট ভোট ১৮ প্রাপ্ত পয়েন্ট ২.৩৭

শরীফ মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান

comment ১৫  favorite ০  import_contacts ৬১২
ঠাঁয় দাঁড়িয়ে থাকো
মৃত্তিকার ওপর
পরোপকারী বন্ধু তুমি
কদাচিৎ চাও না
প্রতিদান হে বন্ধু আমার।

তোমার অবদানে
পরিপূর্ণ মানবকূল
দিয়েছ উজাড় করে
কিঞ্চিত রাখনি বাকি
তোমার সেবায়
কপটতা নেই এতটুকু
তুমি ই প্রকৃত বন্ধু।

শ্যামল ছায়া দাও
অপরুপ তব শোভা
নির্মল তোমার পবন
জুড়ায় দগ্ধ হৃদয়
তোমার শাখা-প্রশাখা
মোটেও ফেলনা নয়
সবই যে দরকারি।

তোমার দেওয়া ফুল-ফল
তৃপ্তি দেয় সদা
নিবারণ করে উদর
তোমার দেয়া আহার
তুমি বন্ধু সবার।

বিধাতার হুকুম
ঠাঁয় দাঁড়িয়ে তুমি
করছো যে পালন
এতটুকু ক্লেশ নেই
উজাড় করে দাও
বিনিময়ে কিছু নাহি চাও।

জীবনের শ্বাস দাও তুমি
শুরু থেকে শেষ
মানবের তরে তুমি
করে যাও জীবন দান।

মানবকূল হায়
কপটতায় জীবন রাঙায়
অযথাই তোমারে বিনাশে
তুমি প্রকৃত বন্ধু যে
বোঝে না তারা মোটে।

আজি তোমার থেকে
শিক্ষা নিয়ে
অভাগা এ মানবকূল
হয় না কেন তোমা সম
প্রত‌্যুপকার না চেয়ে
পরোপকার করুক সবাই।

advertisement

ট্যাগগুচ্ছ

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement