এই পৃথিবীর সমস্ত সৃষ্টিই কোন না কোন ভয় থেকে পালিয়ে বেড়ায়।এমনকি জীবনও মৃত্যু থেকে পালিয়ে বেড়াতে চায়,কারন সে মৃত্যুকে ভয় পায়।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১২ অক্টোবর ১৯৯২
গল্প/কবিতা: ২১টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - ভয় (ডিসেম্বর ২০১৮)

পলাতক
ভয়

সংখ্যা

নাজমুল হুসাইন

comment ৭  favorite ০  import_contacts ৬৪
এর পর শুরু হয় দৌড়,জীবন বাজীর দৌড়,
একজন বাঁচার জন্য দৌড়ায়,অপরজন খাবার জন্য।
হরিণ পালায় বাঘের ভয়ে,বাঘ ডরায় বন্দুকের নল।
মানুষ দৌড়ায় অচেনা এক গন্তব্যের দিকে,
মৃত্যু তাকে তাড়ায়,সারাক্ষণ তাড়ায়।
ভয়ে উদ্বেলিত সাধুর তপস্যা,
না জানি গোপন পাপ,তার সাধনার জামা ধরে টানে!
হৃদরোগের কারন যখন বেশ্যার গোপন প্রণয়,
সতী বধু তখনো পরম মমতায় এক বালিশে ঘুমায়।
পুত্রের খায়েশ মেটাতে,স্বামীর পকেট মারে যে নারী,
তালাকের তিন অক্ষর তাকে ভয় দেখায় সম্পর্ক নাশের।
গাড়ির চাকায় পিষ্ট যুবকের বাঁচাও মিনতী,
ঘিরে ধরা দর্শকের কান ভারি করে তোলে নিমেষে,
পারলে মৃত্যু দূত হতে পালিয়ে বাঁচত যুবকটি।
কবিও পালায়,কথা মালা ছেড়ে,শব্দের খেলা ফেলে,
সমাজের বুকে থিতু হয়,কলম তকে পুতুল করে নাচায়।
কবিরা অস্ত্রধারী নয়-
অথচ ভীষণ ভয় পেয়ে চাবুকও ঘুমতে যায়।
এত ভয় দেখাবার পরেও-
নিজেকে দেখে বহুবার সংজ্ঞা হারিয়েছে ভয়,
এর পর না জানি কত বার-
বিজয়ী বাঘ তাকে হরিণ বানিয়ে খেয়েছে।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
  • মোহন মিত্র
    মোহন মিত্র বেশ ভালো লাগলো।
    প্রত্যুত্তর . thumb_up . ১ ডিসেম্বর
  • মোহন মিত্র
    মোহন মিত্র বেশ ভালো লাগলো।
    প্রত্যুত্তর . thumb_up . ১ ডিসেম্বর
  • আবীর রায়হান
    আবীর রায়হান ঠিকই বলেছেন। জীবন মানেই মৃত্যুকে ভয়। মৃত্যুর অমোঘ আকর্ষণই তো সমস্ত ভয়ের উৎস। অনেক শুভকামনা রইলো ভাই।
    প্রত্যুত্তর . thumb_up . ১ ডিসেম্বর
  • মোঃ মোখলেছুর  রহমান
    মোঃ মোখলেছুর রহমান নাজমুল ভাই এবারের কবিতাটি শব্দ ও উপমায় দারুন।সতী বধুর ঘুম,সাধুর জামা ধরে টানন, বেশ ভাল লাগল।ভাল থাকবেন।
    প্রত্যুত্তর . thumb_up . ২ ডিসেম্বর
  •  মাইনুল ইসলাম  আলিফ
    মাইনুল ইসলাম আলিফ কবিরা অস্ত্রধারী নয়-
    অথচ ভীষণ ভয় পেয়ে চাবুকও ঘুমতে যায়।
    এত ভয় দেখাবার পরেও-
    নিজেকে দেখে বহুবার সংজ্ঞা হারিয়েছে ভয়,
    এর পর না জানি কত বার-
    বিজয়ী বাঘ তাকে হরিণ বানিয়ে খেয়েছে। // এক কথায় দারুণ।শুভ কামনা রইল ভাই।ভাল থাকবেন।
    প্রত্যুত্তর . thumb_up . ২ ডিসেম্বর
  • আবু আরিছ
    আবু আরিছ এরপর শুরু, কখন শুরু? বাঘ হরিণকে ধাওয়া করলো তখন থেকে? কলম কেন পুতুল করে তাকে নাচাবে, কবির অস্ত্রতো কলম, সে এটা চালাবে, Follow your own star...
    প্রত্যুত্তর . thumb_up . ৩ ডিসেম্বর
    • নাজমুল হুসাইন কখন শুরু হবে সেটা পাঠকের উপর ছেড়ে দিয়েছি,কারন কোন পাঠক বাঘ,আর কোন পাঠক হরিণ রুপী সেটা আমার অজানা।পুতুল করে নাচার ব্যপারে যা লিখেছি এটা একটা উপমা,বলতে পারেন কলম কবি সাহিত্যিকদের হিপনোটাইজড করতে পারে,যার ফলে কবির অভিব্যক্তি গুলি কলম প্রকাশ করে দিতে সক্ষম হয়। এ কথাটি ভুলে গেলে চলবে না যে কলম শুধু অস্ত্র নয় শান্তি ও সাম্যের পত্রও বটে।সুতরাং বলব স্বতন্ত্র ভাবনা গ্রহন করেই কবিতাটি লেখা।গঠন মূলক সমালোচনার জন্য আপনাকে অশেষ ধন্যবাদ।
      প্রত্যুত্তর . ৩ ডিসেম্বর
  • মোঃ নুরেআলম সিদ্দিকী
    মোঃ নুরেআলম সিদ্দিকী এত ভয় দেখাবার পরেও-
    নিজেকে দেখে বহুবার সংজ্ঞা হারিয়েছে ভয়,
    এর পর না জানি কত বার-
    বিজয়ী বাঘ তাকে হরিণ বানিয়ে খেয়েছে। চমৎকার উপমায় সিক্ত করলেন কবি। বেশ মন কাড়ল। শুভ কামনা রইল যেন।।
    প্রত্যুত্তর . thumb_up . ৭ ডিসেম্বর

advertisement