আজকের যে সমাজ তা একে বারে আলাদা তাই পরিপক্ষিতে এ লাজ লজ্জা।
-লেখার সাথে বিষয়ের সামঞ্জস্যতা ব্যাখ্যায় লেখকের বক্তব্য

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ৬ আগস্ট ১৯৯৪
গল্প/কবিতা: ২৮টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftকবিতা - লাজ (জুন ২০১৮)

“লাজ”
লাজ

সংখ্যা

মোঃ নয়ন আহমেদ

comment ৩  favorite ০  import_contacts ৬৮
ওহে মানব শুনছো? কি আমাকে চিনতে পারলে না। আমি ধইত্রী দেখ তুমি বা তোমরা সকলে আমার কোলে লালিত! কিন্তু তোমরা যে আমার সন্তান। শুধু তোমরা কেনো সমগ্র প্রাণীকুল উদ্ভিদকুল সবাই যে আমার সন্তান। তোমাদের জন্য আমি যে সব কিছু উজার করে দিয়েছি। খুলে দিয়েছি আমি অফুরন্ত জলোভান্ডার, রেখেছি অফুরন্ত জলবায়ু। তোমাদের বাচাঁর জন্য ঝতু অনুযায়ি দিয়েছি বায়ু খাদ্য ভান্ডার। কিন্তু মানব তুমি বড্ড লোভি? বড্ড অহংকারী! তোমরা যতই শিক্ষিত হচ্ছো ততোই তোমার আর তোমাদের লোভ অহংকার দিন দিন বেড়েই চলেছে। তোমরা মনে করছো আমার একুল শুধুই তোমাদের তাইনা। আর তাই তোমরা নিরবিগ্নে হত্যা করেছো সমস্থ প্রানীকুলকে। শুধু হত্যাই নয়! কতো মানব নারীকে এই ভূ-পৃষ্ঠে কালি মাখিয়েছো তখন আমার দম আটকে যায়। আর তোমাদের স্বাদ মিটানোর পর সেই নারীকে আমার বুক থেকে চিরতরে সড়িয়ে ফেলো। তবে ভেবে দেখো এ নারী তোমারি কেউনা কেউ একজন। এ লজ্জা কার আমার না তোমার? শুধু কি তাই জীব উদ্ভীদকুল তোমাদের যে প্রাণবায়ু জোগায়। বেচেঁ থাকার রশদ যোগায়, আর তোমরা সার্থপরের মতো তাদের ওপর অস্ত্র হাতে ঝাপিয়ে পরছো একটুখানি জায়গার আসায়। আমার কুল খালি করে দিচ্ছো তোমরা। আমার বক্ষ বিদিন্য করে ওবিকেচকের মতো জীবন বিচল করে আমাকে দূর্বল করে দিয়েছো দিনের পর দিন। তোমাদের কান্ড জ্ঞানহিনতায় আমার অনুস্থর যে আজ ফুটো হতে চলেছে। আমার হিমবায় নষ্টো হতে বসেছে ক্ষমতা জাহির করার নামে লিপ্ত হয়েছো আমাকে ধংশ্ব করার প্রতিযোগিতায়; আমার সৃষ্টিকেই তোমরা অসীকার করছো দুঃসাহস দেখাচ্ছো কিন্তু তোমাদের ক্ষমতায় যে আমার কাছে কতটা তুচ্ছ। হুম সেটা বন্যা ঝড় ভূমিকম্পের সময় তোমরা কাকে স্বরন করো। বুঝতেই পারছো কি তাইনা? ওহে মানব তবে কিন্তু তুমি মনে রেখো তোমার মতো আমার বাকি সন্তানদের আমার কলে বিচোরণ করার অধীকার আছে। তাই নিজে বাচাঁর তাগিদে প্রানীকুলের প্রতি ভালোবাসতে সেখো। আর তোমরা রক্ষা করো উদ্ভিদ কুলকে, আর নদি নালা পাহাড় পর্বতকে রক্ষা করে মাতৃজ্ঞানে তূমি আমাকে রক্ষা করো। আর ওরা যে আমার দেহেরি একটা অংশ। দেখ আমার বয়স হয়েছে তোমাদের দায়িত্ব জ্ঞানহীন অত্যাচার সহ্য করতে করতে! আমি যে আজ বড়ই ক্লান্ত বড় অবসান্য। তাই মানব তুমি সাবধান? আমার অস্তিত্ব বির্পন্য হলে তোমার পরিনাম যে, কি হবে সেটা একবারো ভেবে দেখেছো। তুমি আমি দুজনে হারিয়ে যাবো কালের কোন ভরে তখন আর কিছুই লাজ লজ্জা বলতে থাকবে না।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement