তখন চলে গেলি, আহা কোথায় গেলি!
বুকের কাছে আলগোছে, এখনো বাঁধা আছে রাজকীয় বসন্ত
এপাশ থেকে ওপাশে, দ্যাখ কেমন নিরব উচ্ছ্বাসে-
গাঢ় উপমার নদী ছোঁয় জ্বলন্ত কৃষ্ণচূড়া
চোখের কটেজে ভিড়ে নরম জলের মিছিল।

আমিতো এখনো তোর আঁচলকে আকাশ ভেবে
ডানা থেকে খুলে রাখি ছাইয়ের ধূসর,
বেদনার আহ্লাদে শরীরের খাদে খাদে
সবুজ আগুনে পোড়াই কতশত হরিণ প্রহর।

তবুও এ তুই কেমন হিংসুটে, আমি বর্ষণের চিরকুট ঠোঁটে
উড়ে এলে, তুই ঘুম পাড়িয়ে দিলি শীতল চিতার খাটে!