লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ৩১ ডিসেম্বর ১৯৬০
গল্প/কবিতা: ২২টি

বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

keyboard_arrow_leftগভীরতা (সেপ্টেম্বর ২০১৫)

খুঁজে ফিরি
গভীরতা

সংখ্যা

হাসনা হেনা

comment ১১  favorite ০  import_contacts ১,২২৯
অনন্ত অন্তরের গভীরে যখন আমার অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যায়
তখন আমার মুক্তি ঘটে নশ্বর পৃথিবীর ভাল মন্দ,আলো
আঁধার আর সুখ দুখের কারাগার থেকে, শুধু পরম শান্তি ও
চির সুন্দরের প্লাবনে ভেসে বেড়ায় বিমোহিত বিমুগ্ধ চেতনা।

আমার আরাধ্য অমৃত সকল সুখেরা ভিড় করে আমার চারপাশে,
না দেখা স্বর্গের অমল প্রশান্ত পবন ছড়ায় ভালবাসার সুগন্ধ অবিরাম,
অপ্সরীদের আনন্দ সঙ্গীত ছিন্ন করে আমার বিচিত্র বোধের অমোঘ
বন্ধন, আমি যেন হয়ে যাই ওদের একজন, হয়ে যাই অমর অবিনশ্বর।

আবার সহসা কে যেন হায়! টেনে আনে আমায় এ যন্ত্রণাময় অবনীর আবর্তে,
প্রাণের গভীরতায় হানা দেয় কঠিণ বাস্তবতা, আলো আঁধারী পথ ডেকে
বলে হে পথিক, টিকে থাকার লড়াই কর অবিরত, পায়ে পায়ে শত্রু শত উৎ
পেতে আছে আর নানা ছলে, নানা রূপে পেতেছে ফাঁদ তোমার পথে পথে।

এ আসা যাওয়ার মায়াবী খেলায় কোন অদৃশ্য বাঁধন জড়িয়ে রাখে অলখে
আমায়, কার খেয়ালী ঈশারায় বয়ে যায় আমার অবাধ্য সময আর সে সময়ের
স্রোতে হারিয়ে যায় অস্তিত্বের বিচিত্র রূপ আর হৃদয় মথিত করা কত দুঃখ সুখ
শুধু অন্তরের গহীনে লুকিয়ে থাকা কষ্টরা নতুন করে আগলে দাঁড়ায় চলার পথ।

প্রাণের সকল দুয়ার খোলে আমি দৃষ্টি মেলি অসীমে, খুঁজে ফিরি অদৃশ্য সত্য,
খুঁজে ফিরি সে অদৃশ্য শক্তি; কভূ পৌঁছেনা আমার সসীম দৃষ্টি সে অসীমে। আমি
চিন্তনের চরাচরে চষে বেড়াই যখন তখন; কভূ পাই না খুঁজে অনুভবে অনুরাগে।
ভেদ করা যায়না সে অভেদ্য আঁধার যা অনন্তের গভীরতায় চলমান চিরন্তন ।

advertisement

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন

advertisement