বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।
Photo
জন্মদিন: ২৯ নভেম্বর ১৯৯০

লেখক সাক্ষাৎকার-২: মোঃ আক্তারুজ্জামান, বই- নিশিপদ্ম দিন

  • advertisement

    আজকাল তার ব্যস্ততা বেড়েছে। তবুও তিনি অনুরোধ রেখেছেন। সময় দিয়েছেন সাক্ষাৎকারের জন্য। তিনি আমাদের সবার প্রিয় আক্তার ভাই। এবারের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় বের হয়েছে তার প্রথম বই "নিশিপদ্ম দিন"।

    ইফতেখারুল ইসলাম: আক্তার ভাই, কেমন আছেন?

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: ভালো আছি। তুমি কেমন?

    ইফতেখারুল ইসলাম: আমি চিকনমুটি আছি, আই মিন মোটামুটি থেকে একটু ভালো।

    সে যাক, এবার আসি আপনার বইয়ের প্রসঙ্গে। অমর একুশে গ্রন্থমেলায় বের হয়েছে আপনার প্রথম বই "নিশিপদ্ম দিন"। আপনার অনুভূতি কেমন?

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: অনেকেরই 'বাইর' হয়, আমারও একটা বাইর হইছে। এইটা নিয়া আমার কোন নাচন কুদন নাই!

    ইফতেখারুল ইসলাম: (মুখটিপে হাসির ইমো হবে) আচ্ছা, পেছন থেকে ব্যকগ্রাউন্ড মিউজিক দিলে কি নাচন-কুদন দেখার সম্ভাবনা আছে?

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: ধোঁয়া দিলে আরও ভালো দেখাইব বইলা মনে অয়...

    ইফতেখারুল ইসলাম: বইয়ের উৎসর্গপত্রে দেখলাম আপনি আপনার বইটি শ্রদ্ধেয় মহেন্দ্র মজুমদারকে উৎসর্গ করেছেন। তার সম্পর্কে যদি কিছু বলতেন।

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: উনি খুব ছোটবেলা থেকেই আমাকে নানা রকম বই পড়তে দিতেন। তাই আমার বইটা তাঁর প্রতিই উৎসর্গ করলাম। তয় ডরে আছি কোন সময় আবার শিবিররা হুঙ্কার ছাড়ে- হালার পুতেরে ধর, রগ কাইটা দেই। মুসলমান অইয়া হিন্দুর লগে পিরিত ছুটাইয়া দেই...

    ইফতেখারুল ইসলাম: (কিছু সময় ভেবে নিয়ে) এটার কিন্তু একটা পজিটিভ দিকও আছে আক্তার ভাই, জরিপ যেটা বলে- শিবির কিন্তু বাংলাদেশের জনপ্রিয় লেখকদেরই টার্গেট করে।

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: আমি নিশ্চিত আমার বিখ্যাত হওয়ার কোন চান্স নাইক্কা! আমি লেখক না হয়ে সাবান সুন্দরী জাতীয় কিছু হয়ে জন্মালে সে সম্ভাবনা ছিল।

    ইফতেখারুল ইসলাম: (উজ্জ্বল হাসি) এ প্রসঙ্গে আমরা নাহয় ব্যাকসাইটে আলোচনা করব।
    এবার বলুন, আপনার প্রথম বই, গল্পকবিতায় 'জয়ের মা' খ্যাত আমাদের ভাবীর সাড়া কিরূপ?

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: জয়ের মায়ের কাছে আমার বই আর বঙ্কিমের বই সবই ঠোঙ্গার উপকরণ মাত্র!

    ইফতেখারুল ইসলাম: আহা! (দীর্ঘশ্বাস) লেখক জীবনের কষ্ট! জানতে চাইব, আপনার লেখক জীবনের কষ্ট নিয়ে।
    ছাত্র জীবনে লেখালেখি করা একরকম,সংসার জীবনে আরেকরকম। ছাত্রজীবনে ঠিক সেই অর্থে কোন দায়িত্ব থাকে না যেটা সংসার জীবনে থাকে। আর সেই দায়িত্বের কাছে অনেক সময়ই সৃজনশীলতা পরাজিত হয়। এ নিয়ে যদি কিছু বলতেন।

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: দায়িত্বহীনদের সৃষ্টি বরাবরই অর্থহীন হয়! যেমন মিঃ ১৮ যদি মিস ১৬ দের উচা নিচা জায়গা নিয়া লেখে তবে মিঃ ৫৫ লিখবে মিসেস ৫০ গো পাওয়া না পাওয়া, সুখ দুঃখ, হাসি কান্না নিয়া।

    ইফতেখারুল ইসলাম: তাহলে কি তরুণদের লেখা সেই অর্থে জীবনধর্মী হয় না?

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: তা হয় ঐ 'উচা নীচা'ও জীবনেরই অংশ বৈকি!

    তরুণ আর দায়িত্বহীন এক বস্তু না কথাটা ভুইলা গেলে চলবে না কিন্তু!

    ইফতেখারুল ইসলাম: আমি সাংসারিক দায়িত্বের কথা বলছিলাম। যেমন- ছাত্রজীবনে হঠাৎ মাথায় একটা গল্পের প্লট এলো, লেখক লিখতে বসে গেল, লিখতে লিখতে সে হয়ত ভুলেই গেল যে মা বাজারের ব্যাগ আর টাকা টেবিলে রেখে গেছেন, কিন্তু বিবাহিত জীবনে এমন পরিস্থিতিতে... বাকিটা বুঝে নেন।

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: যার লেখার প্রবল ইচ্ছা সে লিখবেই- জেলে বসে হোক আর রান্না ঘরে বউয়ের পাশে বসে হোক। আর যার কাছে সংসার প্রাধান্য পাবে সে কলম ফেলে মধ্যপ্রাচ্যে কামলা দিতে বা ইউরোপ আমেরিকার রেস্টুরেন্টে পিঁয়াজ কাটার জন্য ছুটে যাবেই।

    ইফতেখারুল ইসলাম: এই মুহূর্তে আমাদের সাথে আপনার একজন ভক্ত আছেন...

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: শক্ত!

    ভক্ত: আক্তার ভাই, আমি আপনার বিরাট ফ্যান, ফ্যান মানে ফ্যান, এসি না কিন্তু!

    আপনারে খুব সুন্দর লাগতাছে (বত্রিশ দাঁতের হাসি)

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: লাগতেই অইব। আইজকা সকালে বাসনার সাবান দিয়া গোসল দিছি

    ইফতেখারুল ইসলাম: এহেম! (গলা পরিষ্কার করে নিয়ে) দুঃখিত প্রিয় ভক্ত, আমাদের লাইনটা কেটে গেছে!

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: পাশের দোকান থাইকা স্কচ টেপ কিনা লাইন জোরা দিয়া লও...

    ইফতেখারুল ইসলাম: দুঃখিত ভাই, আমাদের বাজেট কম!

    এবার বলুন দেখি- নতুন লেখকদের বই প্রকাশের ক্ষেত্রে কী কী মাথায় রাখা উচিৎ?

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: নতুনদের যা থাকলে তাকে কেউ আটকে রাখতে পারবে না-
    ১. সুন্দরী হলে তার এক ঘণ্টায় সাড়ে তিনশ বই বিক্রি হবে

    ২. বড় বাড়ীওয়ালার ছেলে-মেয়ের লেখার বাতিক হলেও সমস্যা নেই। বাবার ঘর ভাড়ার টাকা দিয়ে প্রতি বছর অনায়াসে বই ছাপা যাবে।

    ইফতেখারুল ইসলাম: লেখক ভুঁড়িওয়ালা হলে? (ফাঁকেতালে নিজের ঢোলটা পিটিয়ে নিলাম)

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: তার কপালে দুর্দশা আছে!

    ইফতেখারুল ইসলাম: কেল্লা ফতেহ!

    যাকগে, গল্পকবিতার পাঠকদের উদ্দেশ্যে যদি কিছু বলতেন

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: খুব ডর লাগতাছে 'নাই'য়ের খাতায় নাম লেখাইতে বেশি সময় লাগব না!

    ইফতেখারুল ইসলাম: বিষয়টা যদি একটু খুলে বলতেন!

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: ১৫০/২০০<১২৩<৭৬<২৩ দিনে দিনে সব ফুরাইয়া যাইতাছে মনে হয়!

    ইফতেখারুল ইসলাম: বুঝলাম।

    শেষমেশ "নিশিপদ্ম দিন" নিয়ে আপনার যদি কিছু বলার থাকে।

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: হাঁ, ওটা আমারই লেখা!

    ইফতেখারুল ইসলাম: আক্তার ভাই, আপনি আপনার ব্যস্ততার মাঝে আমাদের সময় দিয়েছেন, এজন্য কৃতজ্ঞতা।

    মোঃ আক্তারুজ্জামান: চা পানির কি হইছে ? চায়ের দোকানে আগুন লাগছে বুঝি!

    (ইহা শোনার পর ইফতেখারুল ইসলামের চিপা গলি দিয়া পলায়ন...)



    এক নজরে নিশিপদ্ম দিন:
    ভিন্ন ভিন্ন স্বাদের আটটি গল্পের সংকলন

    প্রকাশক:
    লোকালপ্রেস

    প্রাপ্তিস্থান:
    ক্রিটিক, লিটল ম্যাগ চত্বর

advertisement