বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।
Photo
জন্মদিন: ৬ জুন ১৯৮২

keyboard_arrow_leftসাহিত্য ব্লগ

Doris Lessing এর কবিতা 'Fable'

ড. জায়েদ বিন জাকির শাওন

  • advertisement

     

    ২০০৭ সালে সাহিত্যে নোবেল বিজয়ী কালজয়ী ব্রিটিশ লেখিকা Doris  Lessing  তার সমগ্র জীবনে মাত্র ১৪ টি কবিতা রচনা করেছেন যা ১৯৫৯ সালে "Fourteen Poems " নামে বই আকারে প্রকাশিত হয়। উক্ত কবিতাগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো "Fable " নামক কবিতাটি। Doris  Lessing  আমার অন্যতম প্রিয় একজন সাহিত্যিক। এই প্রথম আমি অন্য কোনো সাহিত্যিকের লেখা অনুবাদ করছি। ভুলত্রুটি ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে পাঠকবর্গ দেখবেন এই প্রত্যাশা করছি। আপনাদের মূল্যবান পরামর্শ আমার লেখার অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে।

     

    Fable

    “When I look back I seem to remember singing.
    Yet it was always silent in that long warm room.

     

    Impenetrable, those walls, we thought,
    Dark with ancient shields.  The light
    Shone on the head of a girl or young limbs
    Spread carelessly. And the low voices
    Rose in the silence and were lost as in water.

     

    Yet, for all it was quiet and warm as a hand,
    If one of us drew the curtains
    A threaded rain blew carelessly outside.
    Sometimes a wind crept, swaying the flames,
    And set shadows crouching on the walls,
    Or a wolf howled in the wide night outside,
    And feeling our flesh chilled we drew together.

     

    But for a while the dance went on -
    That is how it seems to me now:
    Slow forms moving calm through
    Pools of light like gold net on the floor.
    It might have gone on, dream-like, for ever.

     

    But between one year and the next – a new wind blew?
    The rain rotted the walls at last?
    Wolves’ snouts came thrusting at the fallen beams?

     

    It is so long ago.
    But sometimes I remember the curtained room
    And hear the far-off youthful voices singing.”

     

     

    কল্পকথা
    "পশ্চাতে তাকিয়ে মনে পড়ল আমি যে গাইছিলাম গান।
    লম্বাটে উষ্ণ সেই কামরায় যদিও তা ছিল বড়ই নিস্তব্ধ।

    দুর্ভেদ্য তার প্রাচীর, আমরা ভাবেছিলাম যেন
    আদিমতার অন্ধকারাচ্ছন্ন এক ঢাল! আলোকিত হলো
    আলগোছে ছড়ানো অঙ্গে এক তরুণীর শিরে।
    সুপ্তোত্থিত ম্রিয়মান কন্ঠ বেজে উঠে যেন
    হারিয়ে গেল নিমগ্ন পানির অন্তরালে.

    তখনও সেই কামরা নিস্তব্ধ কিন্তু হাতের স্পর্শের ন্যায় উষ্ণ,
    যদি কেউ আমাদের মুড়ে দেয় পর্দার আবরণ!
    সুতোয় বোনা বৃষ্টি ঝমঝমিয়ে ঝরছে বাইরে।
    কখনও বাতাস গড়িয়ে চলে জ্বলন্ত অগ্নিপানে
    ছায়ার পর্দা দিয়ে ঢেকে দেয় আড়ালে প্রাচীরে,
    অথবা নেকড়ের মত গর্জে ওঠে রাতের বিস্তৃতিতে,
    অনুভব করে আমাদের আলিঙ্গনাবদ্ধ শরীরের শৈত্য।

    কিন্তু সেটা তো ছিল মাত্র কয়েক মুহূর্ত নাচের মুদ্রার মত-
    অন্তত এখন তো আমার কাছে সেটাই মনে হয়:
    আলোর শানিত ধারা সোনাঝরা রঙে
    এগিয়ে এসে নিশ্চুপ হয়ে যায়।
    হয়ত আর নেই, সদা স্বপ্নের মত মনে হয়!

    কিন্তু দুই বছরের মাঝে কি পরিবর্তন এলো যে- নতুন হওয়া বইছে?
    আর বৃষ্টির পানি অবশেষে প্রাচীরকে ফেলেছে পঁচিয়ে?
    নেকড়ের গর্জন কেন নুব্জ, তৃষিতের মত পতিত স্তম্ভের আড়ালে?

    অনেকদিন হয়ে গেল।
    কিন্তু এখনো মানসপটে ভেসে ওঠে সেই পর্দা ঘেরা উষ্ণ কামরা
    যেথা এখনো দূর থেকে মনে হয় বিগত যৌবনে গাইছি আমরা."

     

     

    (Fable, 1959 Copyright Doris Lessing, is reprinted by kind permission of Jonathan Clowes Ltd., London, on behalf of Doris Lessing)

advertisement

  • সাইফুল করীম
    সাইফুল করীম উইলিয়াম ব্লেক রে কেমন লাগে আপনার? লিমেরিকের জাদুকর লাগছে আমার কাছে...দেখেন তো ব্লেক সাহেবের কিছু গতি করতে পারেন নাকি? তাড়াহুড়া নাই, ধীরে করলেই হবে......লিংক--<a href="http://www.poetry-online.org/index.htm" target="_blank" rel="...  আরও দেখুন
    প্রত্যুত্তর . ১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১২
  • নিরব নিশাচর
    নিরব নিশাচর হুমমম..... গতকাল তোমার "লবন" গল্পটি পরলাম.. অসাধারণ লিখেছেলে.. গল্পটা আমার সাথে শেয়ার করেছিলে প্রায় চার মাস আগে, কিন্তু সংকলনের ভিতর যেভাবে একজন মায়ের পক্ষ থেকে গল্পটাকে উপস্থাপন করলে এবং শেষ অংশে যেই দক্ষতা প্রদর্শন করলে এতে করে তোমার গল্প লিখা...  আরও দেখুন
    প্রত্যুত্তর . ১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১২
  • আযাহা সুলতান
    আযাহা সুলতান শুভ হোক আপনার পদযাত্রা........
    প্রত্যুত্তর . ১৪ ফেব্রুয়ারী, ২০১২