বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।
Photo
জন্মদিন: ২৩ নভেম্বর ১৯৭৫

keyboard_arrow_leftসাহিত্য ব্লগ

পুনশ্চ

ফাহমিদা বারী

  • advertisement

    জীবনে তুচ্ছ একটা বিষয় নিয়ে এত ঘাটাঘাটি বুঝি আমাকে কখনো করতে হয়নি। এবারে যা করতে হচ্ছে।

    আমি ভেবেছিলাম গত মাসে যা হওয়ার হয়ে গেছে। এই মাস থেকে আবার নতুন করে শুরু করবো। কিন্তু আমার সব আশাভরসায় পানি পড়ে গেল আজ। পুরনো কাসুন্দি আবার নাড়াতে হবে এবার।

    আমি কারো মতামত আশা করি না। শুধু আমি আমার লেখার শেষে সবার কাছে একটা জিনিস দেখার ব্যাপারে প্রশ্ন করবো। যদি কারো কাছে তা থেকে থাকে, দয়া করে তা দেখাবেন।

    সাঈদ সুমন ভাই, আমি এই লেখাটি আপনাকেও মেইলে পাঠিয়ে দিচ্ছি। দেশে থাকলে আমি গক’র অফিসে যোগাযোগ করতাম, ফোনে অথবা নিজে উপস্থিত হয়ে। ইনশাল্লাহ দেশে গিয়েই আমি আপনাদের অফিসে যাবো আশা করছি।

    আমি বিশ্বাস করছি, কিছু বিষধর সাপ আমার পেছনে লেগেছে। তারা কে অথবা কারা আমি জানি না। তবে তারা আছে। খুব সঙ্গোপনে কায়দা করে তারা তাদের কাজ করে চলেছে।

    একটা চক্র বলে বেড়াচ্ছে তারা নাকি একটা স্ক্রিনশট বিলি করেছে অনেককে। অনেকের কাছেই এই স্ক্রিনশটটা পাওয়া যাচ্ছে। সেই স্ক্রিনশটে দেখা যাচ্ছে, ফাহ্‌মিদা বারী বেশ অনেককে কিছু মেসেজ দিয়েছে। যাতে লেখা আছে, আমি সবাইকে বিদেশে স্কলারশীপের (!!) লোভ দেখিয়ে আমার দলে ভেড়াতে চাইছি। মামুনুর রশিদের লেখাতে পাঠক বেশি তাই তাকে নাকি আমার অন্যভাবে সরাতে হবে। অনেক আপারা না জেনে না বুঝে আমার দলে যোগ দিয়েছে।

    একজন সুস্থ মস্তিষ্কের মানুষের পক্ষে এসব কথাতে বিশ্বাস করা কতটুকু সম্ভব আমি জানি না। এসব নিয়ে কখনো বলতে হবে তাও আমি কল্পনা করতে পারি না। ছিঃ!

    যারা আমার বিরুদ্ধে এসব বিষোদগার করছেন, তারা হয়ত সত্যিই আমাকে ক্ষমতাধর মনে করেই আমার পিছু নিয়েছেন। নইলে এমন কথার উৎপত্তিই হয়ত হতো না কখনো।

    গক ইতিপূর্বে অনেক শক্তিশালী লেখককে আসতে যেতে দেখেছে। কিন্তু এমন ধামাকা বুঝি আর কোন লেখকের এই পাঠক বেশি হওয়াতে হয়নি যেমনটা এবার হলো। আমি অবশ্যই মনে করি সেসব লেখকের লেখার মান, জনপ্রিয়তা কোনকিছুর ধারেকাছেও কিছু এখন আর অবশিষ্ট নেই। এখন লিখছে এমন খুব কম লেখকের লেখাতেই ‘সেই’ বিশেষ জাদু অথবা ব্যাপার আছে।

    তবু মিছেমিছি এসব হুল্লোড় কেন আমি বুঝতে পারছি না।

    আমি বাংলাদেশ সরকারের স্কলারশীপ নিয়ে বিদেশে পড়তে এসেছি। আমার বাপ-দাদার স্কলারশীপে আসিনি যে চাইলেই কাউকে আমি স্কলারশীপ বিলি করে বেড়াতে পারবো। এমন হাস্যকর কথা কেউ বলতে পারে আমি কল্পনাও করতে পারি না।

    গক একটা সময় পর্যন্ত আমাকে প্ল্যাটফর্ম দিয়েছে। এখন আলহামদুলিল্লাহ আমি অফলাইনে নিয়মিত হতে চাইছি। এই অনলাইনে জনপ্রিয়তা তথা বিজয় ধরে রাখার জন্য আমি এমন কাজ করে বেড়াবো, এটা অসুস্থ মস্তিষ্কের যেকোন মানুষ ভাবতেই পারে!

    আমার আপনাদের কাছে প্রশ্ন,

    আপনাদের কারো কাছে কি এমন কোন স্ক্রিনশট আছে যাতে ফাহ্‌মিদা বারী এমন কিছু কাউকে পাঠীয়েছে তা লেখা আছে?

    গল্প কবিতা ডট কমের কাছে আমার প্রশ্ন,

    আমার প্রতিটি বার্তা যা আমি পাঠিয়েছি আপনারা দয়া করে চেক করুন। এমন কিছু পান কী না আমাকে জানান।

    এবং, এটা কি সম্ভবপর হতে পারে কী না যে, আমার ছবি ব্যবহার করে কেউ কাউকে মেসেজ পাঠীয়েছে? যদি তা হয়ে থাকে তবে আমি তা জানতে চাই।

    পুনশ্চঃ সামনের বইমেলাতে ইনশাল্লাহ আমার দ্বিতীয় উপন্যাস নিয়ে আসছি। যদি ক্ষমতা থাকে, লেখালেখি দিয়ে আমাকে পেছনে ফেলুন। এসব নোংরা খেলা খেলে নয়।

advertisement

  • ফাহমিদা   বারী
    ফাহমিদা বারী লেখাটি পড়ে স্রেফ চলে যাবেন না দয়া করে। স্ক্রিনশট থাকলে দেখাবেন।
  • ফাহমিদা   বারী
    ফাহমিদা বারী It's very easy to find out everything. Just check the the IP address where from the messages were sent and check my original IP address.
  • আসাদুজ্জামান খান
    আসাদুজ্জামান খান This is just like some other matters in society. Many people get pleasure by making troubles for others and insulting them. please ignore, and continue writing.
    • ফাহমিদা বারী আপনার সুন্দর কথাগুলোর জন্য আন্তরিক ধণ্যবাদ। কিছুদিন আগে আমার এক বন্ধু সুন্দর কিছু বাক্য শেয়ার করলো তার ফেসবুকে। কথাগুলো আব্রাহাম লিংকনের। ''কাউকে কিছু ব্যাখ্যা করতে যেও না। কারণ তোমার বন্ধুদের সেই ব্যাখ্যার আদৌ কোনো প্রয়োজন নেই। (অর্থাৎ তারা এমনিতেই তোমার ওপরে আস্থাশীল) আর তোমার শত্রুরা তোমার শত ব্যাখ্যাতেও তোমার ওপরে বিশ্বাস করবে না। ' কথাগুলো ধাঁই করে গেঁথে গেল মনে। সত্যিই তো! কাকে ব্যাখ্যা করছি আমি? কেন করছি? যারা আমাকে অপদস্থ দেখতে চাচ্ছে তারা আমি যাই বলি না কেন সেটা থেকেই কুতসা ছড়াবে। আর আমার বন্ধুরা হাসাহাসি করে বলবে...'বল কী! তুমি এত খারাপ! আগে তো বুঝিনি! হাহ হা...' আপনাকে ধন্যবাদ অনেক।
      thumb_up . ১৬ মে