বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ২ সেপ্টেম্বর ২০১৮
গল্প/কবিতা: ৫০টি

সমন্বিত স্কোর

৪.৯৫

বিচারক স্কোরঃ ৩.১৫ / ৭.০
পাঠক স্কোরঃ ১.৮ / ৩.০

ছোঁয়া

রমণী ফেব্রুয়ারী ২০১৮

কিছু পতঙ্গের অপমৃত্যু

স্বপ্ন জানুয়ারী ২০১৮

বনসাই জীবনের কষ্ট

প্রশ্ন ডিসেম্বর ২০১৭

ব্যথা (জানুয়ারী ২০১৫)

মোট ভোট ৫৭ প্রাপ্ত পয়েন্ট ৪.৯৫ অব্যক্ত বেদনা

খন্দকার আনিসুর রহমান জ্যোতি
comment ৪৪  favorite ৩  import_contacts ১,৬৫১
সাইবেরিয় পাখীর উড়ানে
তিতিক্ষার মাইল মাইল শূন্যতায়
হেরণ-হাঁসেরা যে ভাবে কষ্ট বুনে যায়
অথবা তুষার ঝড়ের আঘাতে সব ব্যথা
শূষে নেয় কচি শাবকের নরম পালক
মোহান্ধ জীবনের চরণ প্রান্তে এসে
ক্ষয়ে যাওয়া স্মৃতির হামানদিস্তায়
থিতানো কষ্ট চিবোয় এক বয়স্ক কালপুরুষ।

হিম স্নেহে লালিত বরফের চাঁই
নিজেকে নিঃশেষ করে সাগরে মেশে
অথবা সিডরে বিপন্ন চেতনার মন্দিরে
আবারও জ্বলে উঠে মঙ্গল প্রদীপ।

সময়ের তলানি থেকে উঠে আসা দীর্ঘশ্বাস
ইদানীং তাকে প্রশ্ন করে বার বার
এভারটিং ম্যাচের মতো হাজার বার
জ্বলে জ্বলে নিবে গ্যাছে যে চেতনার বারুদ
আবারও কি তা ফুঁসে উঠবে কখনো
আবারও কি ঘটবে কিছু শব্দের বিস্ফোরণ
মোরগের মষ্ণ কাপানো ভাষণ শুনে
জয়বাংলা বোলে জেগে উঠবে ভোরের দোয়েল
একতারায় মুখর হবে কোকিলের পথ চলা
জমে উঠবে সখের মেলা অবাধ সন্ধ্যা রাতে
আনন্দ স্রোতধারা মিলবে কি আবার
বটতলা হাটখোলা বারোয়ারি ঘাটে?
সমীচীন উত্তর গুলো তার অজানাই রয়ে যায়।

হয়তোবা কখনো অনাবাদী মনের আকাশে
পলাতক দিন গুলো ফিরে ফিরে আসে
ফিরে আসে নীড়ে নীড় হারা পাখীরা
মনবাধে জুটিবাধে জোড়া শালিকের ঘর
অথচ চিল শকুণের তীক্ষ্ণ নখর
খসে পড়ে সবুজের শৈশব আঙিনায়
শরতের আকাশে বরষার মেঘ গুলো তখন
কালশশী জোছনার কান্না হয়ে
ব্যথার তিমিরে ভাসিয়ে নেয় বেহুলার বাসর

শুরু হয় আবার অনিশ্চিত পথ চলা
অপেক্ষার প্রহর গোনা নির্মল এক সকাল দেখার
অথচ মানচিত্রের সীমানা জুড়ে
‌কেবলই শোক মিছিল ফিরে ফিরে আসে।

আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন