বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
গল্প/কবিতা: ১০০টি

সোনালু সুধার ঘোর

স্বপ্ন জানুয়ারী ২০১৮

ভাঙা আয়না

প্রশ্ন ডিসেম্বর ২০১৭

ইলিনা এবং হন্তারকের কাহিনী

বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী নভেম্বর ২০১৭

কবিতা - অধরা (জানুয়ারী ২০১৮)

অদৃশ্য আকর্ষণ

সেলিনা ইসলাম
comment ১২  favorite ০  import_contacts ১২৬
সারাদিনের ক্লান্তি ভুলে বসে থাকি জানালায়
মেঘের ভেলায় ভেসে ভেসে ঐ চাঁদ ডাকে ইশারায়-
"কীরে মণি আসবি কাছে? উড়ে যাবি আমার সাথে।
মেঘের ভেলায় ভেসে ভেসে জ্যোৎস্না মাখি চল দুজন মিলে
আয়না মণি কাছে আয়,মাসী পিসির ডাকে ঘুম জড়াই
ছোট্ট বেলার মত করে টিপ দিব যে তোর কপালে!
সুখের পরশ মেখে চোখে ভালোবাসায় তুই জড়ালে।"

শূন্য চোখে ঝাপ্সা দেখি তোর জ্যোৎস্নায়ও নিঝুম আঁখি
চার দেয়ালে বন্দী জীবন যায় চলে যে কাজের ফাঁকে
তোকে দেখে খুব সাধ যে জাগে,ডানা মেলে উড়াল দিতে
উড়বো কীরে আঁচল পেতে বসে থাকি মধ্যরাতে
সবার কাজের শেষ আছে যে,আমার কাজ বাঁকিই থাকে
"কি যে বলিস মণি সোনা! মার কথা কি মনে পড়ে না?
তোর কপালে আদর দিয়ে মা বেড়াত স্বপ্ন ঘোরে
স্বপ্নের সেই পথটা তোকে,শিখিয়েছে সে গল্পের ছলে
বোকা মেয়ে,কেমন করে গেলি সব যে ভুলে?"

কে বলেছে গেছি ভুলে এখনও বাঁচি সেই সে ঘোরে
নদীর তীরে ছুটে ছুটে ফড়িং ধরি চিহ্ন বাটে
ঝিলের বুকে হাঁটুজলে এখনও নামী শাপলা ফুলে
প্রজাপতির সবটুকু রঙ মনে মাখি নিঝুম রাতে
চাঁদনি রাতে উঠোন জুড়ে সবাই বসি পড়া ভুলে
অমাবস্যার সময় এলে জোনাক ধরি বৈয়াম ভরে
সবই আমি এখনও করি ঘুমটা যখন যায় যে দূরে
ভোরের আলো ফোঁটার আগে উঠে পড়ি বিছানা ছেড়ে
চাঁদটা তখন দীর্ঘশ্বাসে মুখ ফুলিয়ে বলে উঠে-
"একবার আয় আকাশ বুকে দেখবি আছিস কত সুখে
লক্ষ্মীসোনা মণি আমার ভেঙে ফেল ঐ জানালা
আমার সাথে তোর যে বাঁধন আয় ছুটে আয় ভুলে জ্বালা"

একদিন আমি আসব ঠিকই স্বপ্নগুলোর পাখা ভেঙে
আমার নাড়ির ব্যথা ভুলে সময় ফুরায় ধীরে ধীরে
সবাই এখন বড় হয়েছে রেঁধে বেড়ে খেতেও পারে
তারা এখন কথায় কথায় খুব করে যে আমায় শুনায়
'ধ্যাত তেরি মা তুমি কোনদিন কিছুই পারো না!'
তুল্য করে ভিন্ন মায়ের মূল্য খোঁজে কীসের দায়ে!
সঙ্গী যে জন সেও বলে 'নারী কি লাগে এ সংসারে
সারাটা দিন কাজটাইবা কি? রান্না খাওয়া এইত সবই'
বুড়ি দাদি বলত সেও 'মুখপুড়ি তুই লক্ষ্মীছাড়া
মেয়ে হয়ে জন্ম নিয়ে বুঝবি কেমন কপালপোড়া।'

এখন আমি ঘোরে থাকি না তোকে দেখিনা কল্পনায়
স্বপ্নগুলো বুড়ো হয়েছে তাই বুঝি আর পথ চলে না
সময় বুঝি এইতো এলো মেঘের ভেলায় ভেসে যাবার
যেটুকু ক্ষণ আছে হাতে সাধ জাগে নিজের করে পেতে
সবার মনে ছুটে ছুটে দেখি হৃদয় শূন্য ঘরে
তুই যেমনই আছিস তেমন ছোট্ট বেলার মতন দূরে
কষ্ট ব্যথা তুই তো জানিস রেখেছি তোকে সাক্ষী করে
আপন করে আত্মা পেতে শুদ্ধি চাই তোর আকর্ষণে-
তোর শহরে আসছি গো চাঁদ দেখব কেমন ভালোবাসা
মায়া মমতা স্নেহ পরশ কেমন দিস তার রূপরেখা।




আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন