বিজ্ঞপ্তি

এই লেখাটি গল্পকবিতা কর্তৃপক্ষের কোন সম্পাদনা ছাড়াই অথবা উপেক্ষণীয় সম্পাদনা সহকারে প্রকাশিত এবং কর্তৃপক্ষ এই লেখার বিষয়বস্তু, মন্তব্য অথবা পরিণতির ব্যাপারে দায়ী নয়।

লেখকের তথ্য

Photo
জন্মদিন: ১৬ মার্চ ১৯৯৬
গল্প/কবিতা: ২টি

প্রাপ্ত পয়েন্ট

গল্প - কামনা (আগস্ট ২০১৭)

মোট ভোট সৎ ইচ্ছা

আরিফুল ইসলাম রনি
comment ১  favorite ০  import_contacts ৫১
এবার উচ্চমাধ্যমিক পাশ করল নাঈম ও তার মা। ইচ্ছাশক্তি থাকার ফলস্বরুপ তারা ভালো ফলাফল করেই উচ্চমাধ্যমিক পাশ করল।
নাঈমের বাবা নেই। মা দর্জির কাজ করে তা দিয়েই সংসার চলে। নাঈমের বাবা কি একটা অসুখে মারা যায়। উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্স এর ডাঃ সে রোগ ধরতে পারেনি। আবার এও বলেনি যে অন্য ভালো হাসপাতালে নিয়ে যান। ফলে সবাইকে ফাঁকি দিয়ে রোগটা নাঈমের বাবাকে পরপারে নিয়ে যায়।
সে থেকে নাজমা বেগমের ইচ্ছা নাঈমকে ডাক্তারী পড়াবে। আর নিজে সেবিকা হয়ে মানুষের সেবা করবে। নাজমা বেগম দুবছর আগে থেকেই প্রতিবেশীদের মাঝে সচেতনতা তৈরী করেই আসতেছেন। নাঈম মেডিকেলের জন্য কোচিং করতেছে। আর তার মা ভালো একটা নার্সিং প্রতিষ্ঠান খুজতেছে। উপজেলাতেই হয়তো উপযুক্ত নার্সিং শিক্ষা নিবেন।
নাঈমের জন্য তার মা সবসময় আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করেন যাতে ও ডাঃ হয়ে ফিরে এসে নিজ এলাকার হাল ধরে। আর কোন অজানা রোগ যেন কারো পরিবারে ব্যাঘাত সৃষ্টি না করে।
সৎ ইচ্ছা কিংবা কামনা বাসনা থাকলে নানা ধরনের বিভীষিকা অতিক্রম করে সফলতার দোরগোড়ায় পৌছানো সম্ভব। নাজমা বেগম ও পুত্র নাঈম তার উৎকৃষ্ট উদাহরন।
আপনার ভালো লাগা ও মন্দ লাগা জানিয়ে লেখককে অনুপ্রানিত করুন
  • মোঃ নুরেআলম সিদ্দিকী
    মোঃ নুরেআলম সিদ্দিকী আরও বড় একটা গল্প আশা করছি। যা নাজমা বেগম ও পুত্র নাঈমের জন্য থাকলো শুভকামনা, আর আপনার জন্য থাকলো ভোট, আর আমার পাতাই আমন্ত্রণ রইল।
    প্রত্যুত্তর . ৮ আগস্ট